fbpx
           
       
           
       
স্ত্রীকে মুহাব্বত করে নাম বদলিয়ে ডাকা; দেওবন্দের ফতোয়া
জুন ১৪, ২০২১ ৭:২৩ অপরাহ্ণ

মুফতি কাওসার আইয়ুব।। ইসলামি শরিয়তে নাম ব্যঙ্গ করে, মানুষের নামকে বিকৃত করে কিংবা অপমানমূলক ব্যঙ্গ করে ডাকা গোনাহের কাজ। অনেকে ইচ্ছা-অনিচ্ছায়, অড্ডা-কিংবা মজারছলে আসর জমাতে গিয়ে বিকৃত নামে ডেকে কথা বলে, যা ইসলামে জঘন্য অন্যায় ও গর্হিত কাজ।

আল্লাহ তাআলা বলেন- ‘হে ঈমানদারগণ! কেউ যেন অপর কাউকে উপহাস না করে। কেননা, সে উপহাসকারী অপেক্ষা উত্তম হতে পারে এবং কোনো নারী অপর নারীকেও যেন উপহাস না করে। কেননা, সে উপহাসকারিণী অপেক্ষা শ্রেষ্ঠ হতে পারে। তোমরা একে অপরের প্রতি দোষারোপ করো না এবং একে অপরকে মন্দ নামে ডাকবে না। কেউ বিশ্বাস স্থাপন করলে তাদের মন্দ নামে ডাকা গোনাহ। যারা এহেন কাজ থেকে তওবাহ না করে তারাই অত্যাচারী।’ (সুরা হুজরাত: আয়াত ১)

কিন্তু আদর করে স্ত্রীকে ডাকা কি এ গুনাহের মাঝে পরবে এ বিষয়ে দেওবন্দের অনলাই ফতোয়া বিভাগে এক ব্যক্তি প্রশ্ন করেন, আমার স্ত্রীর নাম আয়শা, আমি তাকে আদর করে, মুহাব্বত করে হুমায়রা আইশ বা ইশ বলে ডাকতে পারবো কী?

এ প্রশ্নের উত্তরে দেওবন্দ থেকে বলা হয়, আদর করে বা মুহাব্বত করে আয়শা নামের স্ত্রীকে হুমায়রা আইশ বা হুমায়রা ইশ বলে ডাকতে পারবে । (উত্তরনং ৬০৫০৬৩) রাসুল সা. নিজেই আদর করে এক সাহিাবিকে বলেছিলেন, ইয়া উমাইর মা ফাআলান নুগাইর’ বুখারী ৪৯৭১ মুসলীম ২১৫০।

-এটি

সর্বশেষ সব সংবাদ