192256

ধর্মীয় শিক্ষায় নারীজাগরণের অগ্রনায়ক আল্লামা শায়েখ আনওয়ারুল হক চৌধুরী

আওয়ার ইসলাম: ধর্মীয় শিক্ষায় নারীজাগরণের অগ্রনায়ক প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন আল্লামা শায়েখ আনওয়ারুল হক চৌধুরী (র.)-র সংক্ষিপ্ত পরিচিতি:

জন্ম ও বংশঃ সিলেটের অন্তর্গত বালাগঞ্জ থানাধীন গহরপুর পরগনার সুলতানপুর গ্রামের এক ঐতিহ্যবাহী মুসলিম জমিদার পরিবারে তিনি জন্ম গ্রহণ করেন। বংশ পরম্পরা হযরত শাহ জালাল মুজাররাদে ইয়ামেনী (রহ.)-র অন্যতম সাথী হযরত শাহ আলাউদ্দিন (রহ.)-র সূত্রে খলীফাতুর রাসূল হযরত সিদ্দীকে আকবর (রাযি.)-র সঙ্গে মিলিত হয়

বাল্যকাল ও শিক্ষাজীবনঃ শিশুকাল থেকেই তিনি ছিলেন ন্যায়ের ধারক আর অন্যায়ের বিরুদ্দে প্রতিবাদী। নিজের পর্বপুরুষদের প্রতিষ্ঠিত বাড়ির মাদরাসায় ৮ম শ্রেণী পর্যন্ত লেখাপড়া করার পর তৎকালীন বিখ্যাত প্রতিষ্ঠান সিলেট আলিয়ায় তিনি সুনামের সাথে লেখাপড়া করে সম্পূর্ণতা অর্জন করেন।

কর্মজীবনঃ সঙ্গত কারণে কর্মজীবনের প্রথম কয়েকটি বৎসর তিনি ব্যবসায় নিয়োজিত হন পরবর্তীতে হযরত শাহ জালাল দরগাহ মসজিদে ইমামতির দায়ীত্ব আদায় করেন। প্রখ্যাত বুজুর্গ হযরত হরমুযুল্লাহ (রহ.)-র সাথে হজ্জ্বের সফর সঙ্গী হয়ে কয়েক মাস উনার নেক সুহবতের বদৌলতে আধ্যাত্মিকতার অনেক রসদ অর্জন করেন। অতঃপর ধর্মীয় শিক্ষায় নারীজাগরণের অগ্রণী ভূমিকা পালন করে প্রতিষ্ঠা করেন আল জামেয়াতুতত্বায়্যিবাহ হযরত শাহ সুলতান (রহ.) মহিলা মাদরাসা”। এরপর পুরুষদের জন্য প্রতিষ্ঠা করেন “হযরত শাহ সুলতান (রহ.) টাইটেল মাদরাসা।

এছাড়াও সর্বসাধারণের প্রতি লক্ষ রেখে তিনি প্রবর্তন করেন এ’লায়ে কালেমাতুল্লাহ সংগঠন।

পরলোকগমনঃ ১-৬-২০২০ ইংরেজী রোজ সোমবার ভোর ৪.৫০ মিনিটের সময় তিনি মনীবের ডাকে হাজিরি দেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। এসময় তার বয়স ৮৭ বৎসর অতিক্রম করছিলো।

উল্লেখ্য, এখানে সাগর থেকে চামুচে পানি তুলার মতো করে জীবনের আদি-অন্তটি তুলে ধরলাম। বিস্তারিত আলোক পাত হবে আরেকদিন।

-এটি

ad