শনিবার, ২৫ মে ২০২৪ ।। ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ ।। ১৭ জিলকদ ১৪৪৫


আসছে ভয়ংকর কালবৈশাখী, কাল থেকে ঝড়-বজ্রপাত-শিলাবৃষ্টির আশঙ্কা

নিউজ ডেস্ক
নিউজ ডেস্ক
শেয়ার

মোঃ মোসাব্বির রাহমান
বিশেষ সংবাদদাতা

ঋতু পরিক্রমায় চৈত্র ছুঁলেও প্রকৃতিকে এখনো তীব্র খরতাপ অধিকার করতে পারেনি। বসন্তের নরম হাওয়া, এই মেঘ, এই রোদ্দুর। আবহাওয়াবিদরা বলছেন, বছরের এই সময়টায় সাধারণত দিনে প্রখর রোদ থাকে, বিকাল গড়াতেই দমকা হাওয়া ও কালবৈশাখী শুরু হয়। সঙ্গে এক পশলা বৃষ্টিও ঝরে।

কিন্তু এ বছর খেয়ালি আবহাওয়ার কবলে পড়েছে প্রকৃতি। প্রায় প্রতিদিন সকাল থেকে সূর্য ও মেঘের মধ্যে যেন লড়াই চলছে। সূর্য তার দশপ্রহরণ ছড়াতে না ছড়াতেই মেঘ এসে তাকে ঢেকে দিচ্ছে। কোথাও কোথাও হালকা বৃষ্টিও ঝরছে। কিন্তু দমকা হাওয়া তেমন গতি না পাওয়ায় তা কালবৈশাখীতে পরিণত হতে পারছে না। তবে এই পরিস্থিতি আর থাকবে না বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া বিশেষজ্ঞরা।

চলতি মৌসুমের সবচেয়ে ভয়ংকর কালবৈশাখী ঝড় কয়েক দিনের মধ্যেই দেশে আঘাত হানতে যাচ্ছে বলে পূর্বাভাস দিয়েছেন কানাডার সাসকাচোয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ের আবহাওয়া ও জলবায়ু গবেষক মোস্তফা কামাল পলাশ। তিনি আবহাওয়া পূর্বাভাস মডেলগুলো থেকে পাওয়া তথ্য বিশ্লেষণ করে জানিয়েছেন, আজ বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার পর্যন্ত (৩০ ও ৩১ মার্চ এবং ১ এপ্রিল) দেশব্যাপী শক্তিশালী কালবৈশাখী, তীব্র বজ্রপাত ও শিলাবৃষ্টির প্রবল আশঙ্কা রয়েছে।

পাশাপাশি এই সপ্তাহের মধ্যেই চলতি মৌসুমের সবচেয়ে শক্তিশালী ঝড় দেশের বেশিসংখ্যক জেলার ওপর দিয়ে অতিক্রম করতে পারে। ৩১ মার্চ পুরো বাংলাদেশের ওপর দিয়ে এই মৌসুমের সবচেয়ে শক্তিশালী কালবৈশাখী, ব্যাপক শিলাবৃষ্টি ও বজ্রপাতের আশঙ্কা প্রায় শতভাগ নিশ্চিত। এই দিন বজ্রপাতে অধিক সংখ্যক মানুষের মৃত্যুর আশঙ্কা রয়েছে। যদিও বাংলাদেশে গত দশকে টর্নেডোর সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে হ্রাস পেয়েছে। তবে দেশের পশ্চিমাঞ্চলের অনেক জেলায় টর্নেডোর আশঙ্কা রয়েছে এই দিনে।

-এটি


সম্পর্কিত খবর


সর্বশেষ সংবাদ