সোমবার, ২০ মে ২০২৪ ।। ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ ।। ১২ জিলকদ ১৪৪৫


ইফতার সম্পর্কিত কিছু জরুরি মাসায়েল

নিউজ ডেস্ক
নিউজ ডেস্ক
শেয়ার

আওয়ার ইসলাম ডেস্ক: বছর ঘুরে ফিরে এসেছে রহমত, বরকত, মাগফিরাতের মাস মাহে রহজান। রমজান মাসের প্রথম ১০ দিন হলো রহমত, দ্বিতীয় ১০ দিন মাগফিরাত এবং শেষ ১০ দিন নাজাতের। এই মহান মাসের যথাযোগ্য মর্যাদা দান ও এর থেকে পূর্ণাঙ্গ ফায়দা অর্জনের জন্য চাই যথেষ্ট পূর্বপ্রস্তুতি।

আসুন জেনে রাখি ইফতার সম্পর্কিত কিছু জরুরি মাসায়েল:

عن سهل بن سعد أن رسول الله صلى الله عليه وسلم قال لا يزال الناس بخير ما عجلوا الفطر

হযরত সাহল রাযি. থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন মুসলমানগণ কল্যাণের উপর প্রতিষ্ঠিত থাকবে যতক্ষণ তারা তাড়াতাড়ী ইফতার করবে। সহিহ বুখারি, হাদিস নং-১৯৫৭ ;

عن أبي هريرة قال قال رسول الله صلى الله عليه وسلم قال الله عز وجل أحب عبادي إلي أعجلهم فطرا

হযরত আবূ হুরাইরা রাযি. থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেন আল্লাহ তায়ালা ফরমান: আমার নিকট সর্বাধিক প্রিয় বান্দা ঐ ব্যক্তি, যে সবচেয়ে তাড়াতাড়ি ইফতার করে। সুনানে তিরমিযী, হাদিস নং-৭০০

عن أبى هريرة ، عن النبي صلى الله عليه وسلم قال :لا يزال الدين ظاهرا ما عجل الناس الفطر،لان اليهود والنصارى يؤخرون

হযরত আবূ হুরাইরা রাযি. থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেন; ইসলাম ধর্ম বিজয়ী হিসেবে থাকবে যতক্ষণ মুসলমানগণ ইফতারকে তাড়াতাড়ি করবে। কেননা ইহুদী এবং খৃষ্টানরা বিলম্বে ইফতার করে। সুনানে আবূ দাউদ, হাদিস নং-২৩৫৩

এ সকল হাদিসর আলোকে ফুকাহায়ে কেরাম বলেন, যখন সূর্যাস্তের ব্যাপারে নিশ্চিত হবে তখন আর বিলম্ব না করে তৎক্ষনাৎ ইফতার করে নেওয়া মুস্তাহাব।

কখন ইফতার করা মাকরূহ?
সূর্যাস্ত হয়ে গিয়েছে এটা নিশ্চিতরূপে জানার পরও বিলম্ব করে ইফতার করা মাকরূহ। নিশ্চিত সূর্যাস্ত হয়ে গিয়েছে কিন্তু এখনো দিনের আলো অবশিষ্ট রয়ে গেছে, অন্ধকার হয়নি, অথবা এখনো শরীরের পশম দেখা যাচ্ছে, অথবা মসজিদ থেকে আযান হচ্ছেনা ইত্যাদি কারণে বিলম্ব করে ইফতার করা মাকরূহ। ফাতাওয়া আলমগীরী-১/২০০

কী দ্বারা ইফতার করবে?
খেজুর অথবা মিষ্ট জাতীয় বস্তু দ্বারা ইফতার করা উত্তম। এর ব্যবস্থা না থাকলে পানি দ্বারা ইফতার করবে। তাবয়ীনুল হাকায়েক- ১/৩৪৩
عن سلمان بن عامر يبلغ به النبي صلى الله عليه وسلم قال إذا أفطر أحدكم فليفطر على تمر فإنه بركة فإن لم يجد تمرا فالماء فإنه طهور

হযরত সালমান ইবনে আমের রাযি. থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন, তোমাদের কেউ ইফতার করতে চাইলে যেন খেজুর দ্বারা করে। কেননা তা বরকতপূর্ণ। আর তা সম্ভব না হলে পানি দ্বারা করবে। কেননা তা পবিত্রকারী। সুনানে তিরমিযী, হাদিস নং-৫৫৮ ; সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদিস নং-১৬৯৯

عن أنس بن مالك قال كان النبي صلى الله عليه وسلم يفطر قبل أن يصلي على رطبات فإن لم تكن رطبات فتميرات فإن لم تكن تميرات حسا حسوات من ماء

হযরত আনাস রাযি. থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মাগরিবের নামায আদায়ের পূর্বে কিছু পাকা খেজুর দ্বারা ইফতার করতেন। আর তা না থাকলে কয়েকটি শুকনো খেজুর দ্বারা ইফতার করতেন আর তাও না পাওয়া গেলে কয়েক ঢোঁক পানি দ্বারা ইফতার করতেন। সুনানে তিরমিযি, হাদিস নং-৬৯৬।

ইফতারের পূর্বে কী করনীয়?
ইফতারের সময় হওয়ার কিছুক্ষণ পূর্বে ইফতার প্রস্তুত করে আল্লাহর প্রতি মনোনিবেশ করা,বেশি বেশি দআ-দরুদ পড়া,তাওবা-ইস্তিগফার করা।ঘরে মা বোনরাও এর প্রতি যত্নশীল হবেন।এক্ষেত্রে পুরুষরাও তাদেরকে সহায়তা করবেন।

ইফতারের পূর্বে কী দুআ পড়বে?
হযরত মুআয বিন যুহরা রাযি. বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম যখন ইফতার করতেন তখন বলতেন- اللَّهمَّ لَكَ صُمتُ وعلَى رزقِكَ أفطَرتُ (হে আল্লাহ তোমার জন্যই আমি রোজা রেখেছি এবং তোমার রিযিক দ্বারাই ইফতার করেছি।) সুনানে আবূ দাউদ, হাদিস নং-২৩৫৮

ইফতারের পরে যেম দোয়া পড়বে
হযরত আব্দুল্লাহ্ বিন উমর রাযি. বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম যখন ইফতার করতেন তখন নিম্নোক্ত দুআ পড়তেন- ذَهَبَ الظَّمأُ، وابْتَلَّتِ العُرُوقُ، وَثَبَتَ الأجْرُ إِنْ شاءَ اللَّهُ تَعالى (তৃষ্ণা দূর হয়েছে, শিরা-উপশিরা সিক্ত হয়েছে। যদি আল্লাহ চান তবে প্রতিদান অবধারিত হয়েছে।) সুনানে আবূ দাউদ, হাদিস নং-২৩৫৭

ইফতারি ও খানা এক সাথে খেয়ে একটু বিলম্বে মাগরিবের নামায আদায় করা যাবে কি?

উত্তম হলো, সংক্ষিপ্ত সময়ে ইফতার করে নামায আদায় করবে। তারপর ইচ্ছা হলে খানা খাবে। তা সত্ত্বেও যদি বিশেষ কোন কারণে ইফতারী ও খানা একসাথে খাওয়ার পর নামায আদায় করে, তাহলে এতে কোন সমস্যা নেই। তবে এই পরিমান সময় বাকি থাকতেই পানাহার থেকে ফারেগ হতে হবে, যাতে মাকরূহ ওয়াক্তের পূর্বেই নামায আদায় করা যায়। ফাতাওয়া হক্কানিয়া- ৪/১৫৪

-এসআর


সম্পর্কিত খবর


সর্বশেষ সংবাদ