fbpx
           
       
           
       
মেহমানকে সম্মান করা ঈমানের দাবি!
আগস্ট ১৭, ২০২২ ৭:২৩ অপরাহ্ণ

আ.স.ম আল আমিন

এক ব্যক্তির নাম আফনান, সে পরিবারের বড় ছেলে,তার ঢাকায় দোকান রয়েছে। আত্মীয়-স্বজনের মধ্যে তাদের অবস্থা খুবই ভালো, শহরে বাড়ি হওয়ার কারনে আত্মীয়- স্বজনেরা তাদের বাসায় বেশি মেহমান হয়।

আফনান প্রতি মাসে বাসায় বিশ হাজার টাকা তার মায়ের হাতে দেয়, মাসের পনের দিন না যেতে তার মা আবার আফনানের কাছে টাকা চায়। আফনান বলল-মা কিছুদিন আগেই তো আপনাকে বিশ হাজার টাকা দিলাম।

এখন কিসের টাকা মা বলল- বাবা দেখ আমাদের বাড়ি শহরে হওয়ার কারনে বেশিরভাগ সময় আমাদের বাড়িতে মেহমান থাকে। এতে একটু বেশি খরচ হয়। এভাবে পাঁচ মাস মা যেভাবে চাচ্ছে ঐ ভাবে দিয়ে যাচ্ছে, আর আফনানের মনে জমা হচ্ছে অনেক ক্ষোভ।

আফনান- বহুদিন পর বাড়িতে আসেন, দেখল আসলে বাড়িতে অনেক মেহমান আসে। আফনান মেহমান দেখে তাদের সাথে তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করে কথা বলা শুরু করল, মেহমানদেরকে অসম্মানি করল। এটি তার মা দেখতে পায়, তিনি দৌড়ে এসে বলল – বাবা তুমি মেহমানদের সাথে এরূপ ব্যবহার কেন করতেছো?

আফনান বলল- আমি এত কষ্ট করে টাকা উপার্জন করি আর এদের জন্য আমার টাকা সব খরচ হয়ে যাচ্ছে। মা বলল- দেখো বাবা মেহমান তোমার রিযিক খাচ্ছে না সে তার রিযিক খাচ্ছে। আফনান বলল- মা আমি এত টাকা পাঠাচ্ছি আর আপনি বলছেন তারা তাদের রিযিক খাচ্ছে এটা কিভাবে সম্ভব? তাহলে শোনো- পবিত্র কোরআনে ইরশাদ হয়েছে, পৃথিবীতে বিচরণশীল এমন কোনো প্রাণী নেই, যার রিজিকের দায়িত্ব আল্লাহর ওপর নেই।

তাদের স্থায়ী এবং অস্থায়ী অবস্থানস্থল সম্পর্কে তিনি অবহিত। সবকিছুই একটি সুস্পষ্ট কিতাবে লেখা আছে।” (সূরা হুদ : ৬) বাবা আফনান তুমি কি জানো? মেহমানকে সম্মান করা ঈমানের দাবি, আফনান বলল-না মা।

তাহলে শোনো- হাদিসে ইরশাদ হয়েছে, আবূ শুরায়হ্ ’আদাবী রা. হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যখন কথা বলেছিলেন, তখন আমার দু’কান শুনছিল ও আমার দু’চোখ দেখছিল। তিনি বলছিলেনঃ যে ব্যক্তি আল্লাহ ও শেষ দিনের উপর বিশ্বাস রাখে, সে যেন তার প্রতিবেশীকে সম্মান করে।

ব্যক্তি আল্লাহ ও শেষ দিনের উপর বিশ্বাস করে সে যেন তার মেহমানকে সম্মান দেখায় তার প্রাপ্যের বিষয়ে। জিজ্ঞেস করা হলোঃ মেহমানের প্রাপ্য কী, হে আল্লাহর রাসূল? তিনি বললেন একদিন একরাত ভালভাবে মেহমানদারী করা আর তিন দিন হলে (সাধারণ) মেহমানদারী, আর তার চেয়েও অধিক হলে তা হল তার প্রতি দয়া।

যে ব্যক্তি আল্লাহ ও আখিরাত দিবসে বিশ্বাস রাখে, সে যেন ভাল কথা বলে অথবা চুপ থাকে। (সহিহ বুখারি- ৬০১৯) আফনান বলল – মা আমিতো এর আগে এই আয়াত – হাদিস কখনো শুনিনি। মা বলল – বাবা আফনান শুধু তুমি না, আমাদের সমাজে অনেক মানুষ আছে তারা মেহমান আসলে বাজে ব্যবহার করে এবং অনিহা প্রকাশ করে। অথচ মেহমান তার রিযিক সে খাচ্ছে, আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবাইকে বুঝার তৌফিক দান করুক।

-gcdt

সর্বশেষ সব সংবাদ