fbpx
           
       
           
       
অনৈতিক সম্পর্ক ইসলাম সমর্থন করে না
জানুয়ারি ০৫, ২০২১ ৮:৩১ অপরাহ্ণ

মুহাম্মদ নাজমুচ্ছাকিব: মহান আল্লাহ্‌ তায়ালা সুরা নিসা এর ৩ নম্বর আয়াতের মাধ্যমে বিবাহ ফরজ করেছেন। প্রত্যেক সামর্থবান ব্যাক্তির জন্য বিবাহ ফরজ।কিন্তু আমাদের সমাজে দেখা যাচ্ছে খুব অল্প বয়সে যুবক-যুবতিরা নানান অনৈতিক বিবাহ বহিভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়তেছে।

যার খারাপ প্রভাব আমাদের সমাজ তথা আমাদের দেশের উপর পড়তেছে।অনৈতিক সম্পর্কের তাড়না উত্তিবয়সি ছেলে মেয়েদের মাঝে বেশি দেখা যায়।একজন শিক্ষার্থীর চিন্তা চেতনা ধ্যান ধারনার সব টুকু মিলিয়ে থাকবে শুধুই অধ্যায়ন কিন্তু আমাদের ছাত্র সমাজ এসব বাদ দিয়ে অনৈতিক সম্পর্কের দিকে বেশি ঝুকছে। যার ফলে আমাদের শিক্ষার্থীদের পর্যাপ্ত যোগ্যতা থাকার পরেও আশানুরূপ কিছু করতে পারছে না।আমাদের শিক্ষার্থীদের পড়ার টেবিল এর বাহিরে বেশি পাওয়া যায়।

এর পিছনে অন্যতম কারণ আমাদের সামাজিক সচেনতার অভাব।একটি বাচ্চাকে ছোটবেলাতেই অনৈতিক সম্পর্কের খারাপ দিক বুঝিয়ে দেওয়া উচিত ছিল কিন্ত আমাদের সমাজ এটা করছে না।এই নৈতিক সম্পর্কের খারাপ দিক সম্পর্কের খারাপ দিক আলোচনা করতে গেলে প্রথমে আমি যেটা বলব সেটা হচ্ছে, আমার একজন রুম মেট ছিল যার প্রতিদিন এর রুটিন ছিল রাত ১১ টা থেকে রাত ২টা পর্যন্ত প্রেয়সির সাথে ফোনালাপ করা।

শুধু তাই নই একদা সে এতই অসুস্থ ছিল যে ঠিকমত খাবার খেতে পারে নাই তবুও ওই রাতে পূর্ব নির্ধারীত রুটিন অনুযায়ি কথা বলেছে। একজন ছাত্র যদি একমাস পড়ার টেবিলে বসতে না পারে তাতে তার কোন কষ্ট হয় না কিন্ত একদিন প্রেয়সির সাথে কথা বলতে না পারলে তার অবস্থা খারাপ হয়ে যায়।অর্থাৎ পড়াশোনা থেকে অনৈতিক সম্পর্কের দিকে ঝুকছে বেশি আনাদের ছাত্র সমাজ।

আরো যদি বলতে যায় তাহলে আমরা যদি বিশ্ববিদ্যালয় গুলোর ক্যাম্পাস এর দিকে নজর দেই তাহলে দেখতে পাব যে, ক্লাস চলছে অথছ একদল ছাত্র ক্লাস রুমে না থেকে ক্যান্টিন বা মাঠে বসে প্রেমালাপ চালাচ্ছে। এই কপোত-কপোতির কারণে সমাজের অবস্থা এমন হয়েছে যে, পার্কে বা বিভিন্ন দর্শনীয় স্থানে কোন সুস্থ মস্তিস্কের মানুষ যেতে পারে না।

এই অনৈতিক সম্পর্কের সবচেয়ে বড় যে খারাপ দিক তা হচ্ছে, আমরা মাঝে মধ্যেই বিভিন্ন ময়লার ভাগাড় বা নদীর পাড়ে বা ফ্লাই ওভার এর পিলার এর ফাকে ৩/৪ দিন বয়সি পিতৃ-মাতৃহীন শিশু পড়ে তাকতে। যার অধিকাংশ কুকুর বিড়ালের খাদ্যে পরিণত হয়।যা খুবই ভিবৎস দৃশ্য।যৌন নিপিড়ন আত্মহত্যার সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে এই অনৈতিক সম্পর্কের কারণে।অনৈতিক সম্পর্ক সকল ধর্মেই গুনাহের(পাপ)কাজ।

তাই এই ব্যাপারে বৃহত পরিসরে জন সচেতনতা তৈরি করতে হবে। যাতে এসকল অনৈতিক কাজ বন্ধ করা যায়।

লেখক: আল হাদীস অ্যান্ড ইসলামিক স্টাডিজ, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া।

-এটি

সর্বশেষ সব সংবাদ