fbpx
           
       
           
       
ঘরে যদি শান্তি চান, মেনে চলুন এ নিয়মগুলো
জানুয়ারি ০৪, ২০২১ ৮:১৮ অপরাহ্ণ

আওয়ার ইসলাম: ইসলাম সব সময় ঐক্যের ওপর জোর দেয়। বিভেদ-অনৈক্য পছন্দ করে না। কিভাবে ঐক্য ধরে রাখা যায়, তার মূল সূত্রগুলো বলে দেয়। নবিজি সা.-ও পারস্পরিক সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্যের প্রতি উদ্বুদ্ধ করে গেছেন। সামাজিক ও পারিবারিক উভয় অঙ্গনে। এজন্য খুব বেশি কিছু যে করতে হয়, এমন কিন্তু নয়। ইসলামের এটাই বড় একটা বৈশিষ্ট্য, অতি সহজ ও সরল একটা কাজ, অথচ ফলাফল অকল্পনীয়। সামান্য মেহনতে, ছোট্ট একটু হরকতেই বিরাট বরকত হাসিল হয়ে যায়।

বর্তমানে আমাদের ঘরে বরকত নেই। রিযিকে বরকত নেই। খাবারে বরকত নেই। রুজিতে বরকত নেই। রোজগারে বরকত নেই। সময়ে বরকত নেই। এ নিয়ে হাহুতাশেরও অন্ত নেই।

নবিজি সহজ একটা সমাধান দিয়ে গেছেন। সাহাবীরা পেয়ারা নবির কাছে অনুযোগের স্বরে বললেন,
-আমরা খানা খাই, কিন্তু পেট ভরে না। তৃপ্ত হতে পারি না।
-সম্ভবত তোমরা আলাদা আলাদা খাও?
-জ্বি জ্বি ঠিক তাই!
-একসাথে খেতে বসবে। আল্লাহর নাম নিয়ে শুরু করবে। আল্লাহ বরকত দিবেন (আবু দাউদ, ইবনে মাজাহ)।

মাত্র দুইটা কাজ করতে বলেছেন নবিজি। তাতেই বরকত দেখা দিবে:

ক. একসাথে মানে একপ্লেটে খেতে বসা। খ. শুরুতে বিসমিল্লাহ পড়া।

এখানে বরকত বলে শুধু খাবারের বরকত ও শরীরে তার প্রভাবের কথাই নবিজি বলেননি, পারিবারিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে দেখা দিবে। একসাথে নিয়মিত খেতে বসলে, পরিবারে ভুল বোঝাবুঝি, রেষারেষি হওয়া সম্ভব? সবাই সবার প্রতি সহানুভূতিশীল থাকলে বরকত না এসে পারে?

-কেএল

সর্বশেষ সব সংবাদ