192973

বাজেটে অর্থনীতি নয়, মানুষকে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে: অর্থমন্ত্রী

আওয়ার ইসলাম: অর্থনৈতিক উন্নয়ন নয়, বরং এবারের বাজেটে সাধারণ মানুষকে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। সোমবার জাতীয় সংসদ ভবনে বিগত ২০১৯-২০ অর্থবছরের সম্পূরক বাজেটের ওপর সমাপনী বক্তব্য দেয়ার সময় তিনি একথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, এবারের বাজেট হলো ‘মানবিক বাজেট’। অর্থনৈতিক উন্নয়ন নয়, বরং বাজেটে সাধারণ মানুষকে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে। তাছাড়া মানুষ না থাকলে বাজেট কার জন্য? করোনার কবল থেকে আগে দেশের মানুষকে বাঁচাতে হবে।

করোনার সংক্রমণ পরিস্থিতি বিবেচনা করে বাজেট বাস্তবায়নে সকলের সহযোগিতা কামনা করে তিনি বলেন, বাজেট দেয়ার পর তা বাস্তবায়নের সময় বিভিন্ন পর্যায়ে যৌক্তিক কারণে কিছুটা সংযোজন এবং তা সমন্বয়ের প্রয়োজন হয়। কারণটি আমাদের সবার জানা। তাই মহামারি কোভিড-১৯ পরিস্থিতি বিবেচনায় সম্পূরক বাজেটে রাজস্ব আয় ও ব্যয়ের মধ্যে কিছু সমন্বয় করার চিন্তা করেছি। সে জন্য জিডিপি লক্ষ্যমাত্রাও ৮ দশমিক ২ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৫ দশমিক ২ শতাংশ নির্ধারণ করেছি। যদি পুননির্ধারিত এই লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে পারি, তা হবে দক্ষিণ এশিয়ায় সর্বোচ্চ, যোগ করেন মন্ত্রী।

তিনি বলেন, সম্পূরক বাজেটে করোনা দুর্যোগ মোকাবেলায় স্বাস্থ্যসেবা খাত, স্বাস্থ্য চিকিৎসা বিভাগ, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ এবং প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়কে অতিরিক্ত আরো তিন হাজার ৬০৫ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

নতুন অর্থবছরের বাজেট সবার জন্য উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রতি বছর বাজেটে অর্থনৈতিক উন্নয়নগুলো বেশি অধিকার পায়। কিন্তু এবার তা করা হয়নি। এ বছর মানুষকে প্রধান্য দেয়া হয়েছে। এটা অর্থনৈতিক বাজেটের পাশাপাশি মানবিক বাজেটও।

অর্থমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবার গ্রামীণ অর্থনীতিকে গুরুত্ব দিতে বলেছেন। তাই গ্রামের মানুষকে রক্ষা করতে দায়িত্ব নিয়ে আমরা বাজেট প্রণয়ন করেছি। প্রতিবছর আমরা রেভিনিউ অর্জন করি এবং তা খরচ করি। কিন্ত এ বছর আগে আমরা রেভিনিউ খরচ করবো। পরে তা অর্জন করবো। যদি আগে খরচ না করি তাহলে মানুষ বাঁচবে কী করে? আর মানুষ না বাঁচলে দেশ কার জন্য? বাজেট কার জন্য? তাই সবাইকে অনুরোধ করবো, আসুন সবাই আমরা ঐকমত্যের ভিত্তিতে এই বাজেট পরিচালনা করি।

-এএ

আপনার বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- 01640523566