শিরোনাম :
সমকামী নাটক বিরোধী আন্দোলন গড়াচ্ছে রাজপথে
জুলাই ০৩, ২০১৭ ৮:১০ অপরাহ্ণ

এ এস এম মাহমুদ হাসান

সম্প্রতি সমকামিতাকে সমর্থন করে তৈরি করা রেইনবো নাটকটি আরটিভিতে প্রচারের কারণে ক্ষোভে ফুঁসছে আম জনতা। বিকৃত ও অশ্লীলভাবে নির্মিত নাটকটির অর্থায়নকারী প্রতিষ্ঠান গ্রামীন ফোন ও আরটিভি এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে জাতির কাছে ক্ষমা না চাওয়ায় রাজপথের আন্দেলনের কথা ভাবছে ইসলামি দলগুলো। সাথে সাথে নাটকটির কলাকুশলীদের চারিত্রিক অবক্ষয় ও অধঃপতনের জন্য তাদের তাওবা ও ক্ষমা চাওয়ার মাধ্যমে স্বাভাবিক জীবন যাত্রায় ফিরতে শুধরানোর আহবান জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

সকল ধর্মের পাশাপাশি এ দেশের রাষ্ট্রীয় সাংবিধানিক আইনেও সমকামিতাকে দণ্ডনীয় অপরাধ হিসেবে উল্লেখ থাকলেও এ ব্যপারে রাষ্ট্রের নিরবতা ও প্রকারান্তরে সমকামিতার পৃষ্ঠপোষণ করায় রাষ্ট্রের কাছে জবাব চাইবে সংশ্লিষ্ট সংক্ষুব্ধরা।

এ ব্যপারে ইসলামি ঐক্যজোটের মহাসচিব মুফতি ফয়জুল্লাহ আওয়ার ইসলামকে বলেন, আরটিভি ও গ্রামীনফোন এমন একটি অসামাজিক, অনৈসলামিক পাপাচারী নাটক সম্প্রচার করায় আমরা মর্মাহত ও ক্ষুব্ধ। তারা এ দেশকে একটি নীতি ভ্রষ্ট, পতিত ও পশ্চাৎপদ রাষ্ট্র হিসেবে বিশ্ব দরবারে খুব উপস্থাপন করার চেষ্টা করছে। ইতোপূর্বেও সমকামীদের নিয়ে মিটিং, মিছিলও করতে দেখেছি আমরা। সুতরাং আর ছাড় নয়। আমরা এই সমকামী নাটকের সব ধরনের কলাকুশলী ও জড়িতদের বিরুদ্ধে খুব শিগগিরি রাজপথে নামব। এ ব্যপারে আমাদের মাঝে আলোচনা চলছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে হেফাজতে ইসলামের সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী আওয়ার ইসলামকে বলেন, শুনতেও অবাক লাগে, এই জঘন্য কাজের জন্য আল্লাহ তায়ালা একটি জাতিকেই ধ্বংস করে দিলেন। তারপরও কিভাবে একটি মুসলিম রাষ্ট্রে বেপরোয়াভাবে এমন একটি খারাপ চারিত্রিক নাটক প্রচার হলো! নিশ্চয়ই আমাদের সমাজকে কলুষিত করতে, যুবকদের পথ ভ্রষ্ট করতে ও ইসলামের সু মহান আদর্শকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে পাশ্চাত্যের নষ্ট যৌনতার বীজ বপনের চেষ্টা করছে এক শ্রেণির বেকারগ্রস্তরা। যদি এই সমকামী নাটকের সাথে জড়িতরা স্বেচ্ছায় জাতির কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমা না চায়, তাহলে অবশ্যই রাজপথের আন্দেলনের মাধ্যমে আরটিভির লাইসেন্স বাতিল করা হবে। সংশ্লিষ্টদের শাস্তি চাওয়া হবে। এ ক্ষেত্রে একুটুও ছাড় দেওয়ার সুযোগ নেই।

ইসলামাবাদী বলেন, আমরা আলোচনা করে খুব শিগগিরি আন্দোলনের ডাক দিব।

জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক খেলাফত মজলিসের একজন নির্বাহী সদস্য বলেন, এ খারাপ ও নির্লজ্জ সমকামী সমর্থন সংশ্লিষ্ট কাজগুলো দীর্ঘ সময় বিরতির পর একেকভাবে উপস্থাপন করা হচ্ছে। এর দ্বারা তারা ধীরে ধীরে পতিতালয়ের মত সমকামীলয় খোলার ও রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি পাওয়ার চেষ্টা করছে। আমরা সব দলের সাথে আলোচনা করছি, আলোচনা ও কর্মপন্থা নির্ধারণ করে রাজপথের আন্দোলনে নামা হবে ইংশাআল্লাহ।

কোনো ধর্মে সমকামিতার অনুমোদন নেই; পশু সমাজেও নেই:

সমকামিতা ও একটি জাতির ধ্বংস

সর্বশেষ সব সংবাদ