আইটিভি’র উদ্যোগে নিউইয়র্কে সিরাতুন্নাবী কনফারেন্স অনুষ্ঠিত
অক্টোবর ১৮, ২০২১ ১১:৫৬ পূর্বাহ্ণ

আওয়ার ইসলাম ডেস্ক: গ্লোবাল দাওয়াহ চ্যানেল আইটিভি ইউএসএ-এর উদ্যোগে আয়োজিত সিরাতুন্নাবী কনফারেন্সে ইসলামিক আলেম ও স্কলারগণ দলমত, ধর্মবর্ণ নির্বিশেষে বিশ্ব নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর জীবনাদর্শ অনুসরণের মাধ্যমে ইহকাল ও পরকাল সুন্দর করার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, মুহাম্মদ (সা.) শুধুমাত্র মুসলমানদের জন্য নয়। তিনি সমগ্র বিশ্ববাসীর জন্য। বিশ্বের চলমান যেকোন সংকট সমাধানে মহানবীর আদর্শ অনুস্মরণ অনস্বীকার্য।

No description available.

বক্তারা কোরআন-হাদিসের আলোকে বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন এবং রাসুলের (সা.) জীবনাদর্শ প্রত্যেক মুসলমানকে অবশ্যই অনুকরণ-অনুস্মরণ করার পাশাপাশি বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় অন্যান্য ধর্মের মানুষদের কাছে পৌছে দেওয়ার আহ্বান জানান। এজন্য বক্তারা দাওয়াতী কাজের উপর গুরুত্বারোপ করেন এবং দাওয়াতী কাজের জন্য আইটিভি’র মতো চ্যানেল-কে পৃষ্ঠাপোষকতা করতে হবে।

উল্লেখ্য, ‘বিশ্ব মানবতার কল্যাণে মুহাম্মদ (সা.)’ শিরোনামে এই কনফারেন্স গত ১৫ অক্টোবর শুক্রবার সিটির কুইন্সের সাতফিন বুলেভার্ডের হিলসাইড এভিনিউস্থ তাজমহল পার্টি হলে অনুষ্ঠিত হয়। বিকেল সাড়ে ৫টা থেকে রাত সাড়ে ১০টা পর্যন্ত চলে এই কনফারেন্স। বিপুলসংখ্যক মুসলিম নর-নারী কনফরেন্সে উপস্থিত ছিলেন। খবর ইউএনএ’র।

বাসমা-এর টাইটেল স্পন্সরে আয়োজিত কনফারেন্সের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইটিভি ইউএসএ-এর সিইও মাওলানা মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ। এরপর শুরু হয় ইয়্যুথ প্রোগ্রাম। এতে দারুল উলুম, দারুস সালাম মসজিদ ও জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টার সহ বিভিন্ন ইসলামিক ইন্সটিউিটের শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়। এসময় দারুল উলুম-এর সিনিয়র শিক্ষক মওলানা জুবায়ের আহমেদ নদবী, হাফেজ আবুল খায়ের, ইমাম জাফরী আলী, হাফেজ নাজমুল হাসান, ইমাম মির্জা শাকেরুর রহমান, হাফেজ তাজুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

No description available.

কনফারেন্সে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে মহানবী মুহাম্মদ (সা.)’র জীবনাদর্শ নিয়ে বক্তব্য রাখবেন জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের (জেএমসি) ইমাম ও খতিব আবু জাফর বেগ, জেএমসি’র পরিচালক ইমাম শামসী আলী, বায়তুল মামুর মসজিদের ইমাম ও খতিব দেলোয়ার হোসাইন, ইসলামিক কালচারাল সেন্টার অব নিউইয়র্কের ইমাম ও খতিব জাকির আহমেদ, দারুস সালাম মসজিদের ইমাম ও খতিব আবদুল মুকিত, মসজিদ আবু হুরায়রা-এর ইমাম ও খতিব মুফতি হাফিজ ফায়েকুদ্দিন এবং আল মামুর স্কুলের ইসলামিক স্টাডিজের প্রধান ইমাম জাফির আলী, জনপ্রিয় শিশুবক্তা ও ফাউন্ডার অব চাইল্ড, ইউএন অ্যান্ড হার্ভাড স্পিকার ফাতিহা আয়াত প্রমুখ।

কনফারেন্সে নিউজার্সীর দারুল ইসলাম হাফিজ একাডেমির পরিচালক ও ইমাম শায়েখ ওয়ালিদ পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত এবং আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন নাশিদ শিল্পী ইকবাল হোসেন জীবন রাসূল (সা.)-এর শানে নাশিদ পরিবেশন করে উপস্থিত সকলকে মুগ্ধ করেন। তাদের সুললিত কন্ঠের মনোমুগ্ধকর তেলওয়াত ও হামদ-নাত শুনে সবাই অভিভুত হন। এছাড়াও পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন কারী এবং বিশ্বের বিভিন্ন দেশে হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতার প্রশিক্ষক ও পরীক্ষক হাফিজ কারী নাজমুল হাসান। নতুন প্রজন্মের জোমাইমা মাদিহা ও জোহাইমা মানহা কোরআন তেওলাওয়াত, কবি ফররুক আহমদের কবিতাপাঠ করে রোমাইসা আনসারী, গজল পরিবেশন করে রেদওয়ানা রাহী ও মাহিন।

কনফারেন্সে নিউইয়র্ক ষ্টেট সিনেটর জন ল্যু, ব্রুকলীন বরো প্রেসিডেন্ট এবং সিটি মেয়র পদে ডেমোক্র্যাট দলীয় প্রার্থী এরিক অ্যাডম-এর প্রতিনিধি ও সাউথ-ইষ্ট এশিয়ান অ্যাফেয়ার্সের পরিচালক দীলিপ চৌহান, হিলসাইড ইসলামিক সেন্টারের বোর্ড অব ট্রাষ্ট্রির চেয়ারম্যান আব্দুল আজিজ ভুইয়া প্রমুখ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ বক্তব্য রাখেন। এছাড়াও বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রাখার জন্য ব্রুকলীন বরো প্রেসিডেন্টর পক্ষ থেকে বিভিন্ন মসজিদের ইমাম, ইকবাল হোসেন জীবন ও ফাতিহা আয়াত-কে সম্মামনা সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়।

কনফারেন্সে ইমাম আবু জাফর বেগ বলেন, জীবনের সকল ক্ষেত্রেই রাসুল (সা.)-কে অনুসরণ-অনুকরণ করা আমাদের কর্তব্য। তিনি বলেন, নামাজ-দোয়ায় দরুদ শরীফ না পরলে তা কবুল হবে না। এতে বুঝা যায় রাসুল (সা.) কত গুরুত্বপূর্ণ। বলেন, মুখে মুখে রাসুলের উম্মত দাবী করলে হবে না। তাঁর সুন্নাহ অনুসরণ করতে হবে।

ইমাম দেলোয়ার হোসাইন বলেন, জীবনকে সুন্দর করতে আর শান্তিময় জীবনের জন্য আল্লাহ-রাসুল (সা.)-কে সমানভাবে ভালবাসতে হবে। তাঁর ভালবাসা পেলে হলে মহব্বতের সাথে আল্লাহ-রাসুল (সা.)-এর আদেশ-নিষেধ মানতে হবে। নবী-রাসুল (সা.)-কে ২৪ ঘন্টাই রাত-দিন সকল কাজেই অনুস্মরণ করতে হবে। এর কোন বিকল্প নেই।

ইমাম শামসী আলী বলেন, মহানবীর (সা.) জীবন চরিত নিজেদের মধ্যে ধারণ করে আমাদের জীবনকেও মানবিকগুনাবলী সম্পন্ন করে তুলতে হবে। একজন আরেকজনকে সম্মান দিতে হবে, সম্মান জানাতে হবে। ইহকাল-পরকালের জীবন সুন্দর করতে হবে আল কোরআন ও রাসুলের আদর্শ অনুসরণ করে আল্লাহর আদেশ-নিষেধ মানতে হবে। মসলিম ও নন মুসলিম সবার জন্যই মহানবীর আদর্শ অনুসরণীয়। তিনি বলেন, বিশ্বের চলমান যেকোন সংকট সমাধানে মহানবীর আদর্শ অনুস্মরণ অনস্বীকার্য।

আব্দুল আজিজ ভুইয়া বলেন, রসুল (সা.) হচ্ছেন পৃথিবীর সকল মানুষের মধ্যে শ্রেষ্ঠ মানুষ। তাঁর সুন্নাহ তথা জীবনাচরিত পালনের মধ্য দিয়ে প্রত্যেকেই আল্লাহতায়াল সন্তুষ্ট লাভ করতে হবে। আর এজন্য নবীকে সত্যিকারার্থেই জানতে হবে, বুঝতে হবে। সেই সাথে আল্লাহর কথা মানতে হবে। তবেই না ইহকাল-পরকাল শান্তিময় হবে। তিনি জর্জ ওয়াশিংটন ইউনিভাসিটির প্রফেসর আশকারীর নেতৃত্বে একটি গবেষণা দল পৃথিবীব্যাপী মহানবীর সুন্নাহ পালন ও বাস্তবায়নে এক সমীক্ষার রিপোর্ট সম্প্রতি প্রকাশ করেছেন উল্লেখ করে বলেন- এই গবেষণায় প্রতিমান হয় যে, আমরা মুসলমানরা মহানবীর আদর্শ পালনে অনেকে দূরে সড়ে যাচ্ছি। এই অবস্থা থেকে নিজেদের পাশাপাশি নতুন প্রজন্মকে রক্ষা করতে হবে।

ইমাম জাকির আহমেদ বলেন, রাসুল (সা.) সমগ্র মানবজাতির জন্য আদর্শ। তিনি রহমাতাল্লিল আলামীন অর্থাৎ সমগ্র বিশ্বাসীর জন্য রহমত স্বরূপ। আজকের তরুণ প্রজন্মের কাছে রাসুল (সা.)-এর আদর্শ পৌছে দিতে হবে। তিনি রাসুলের মক্কা ও মদিনা জীবনে মুসলিম-অমুসলিম ব্যক্তি, সমাজ ও রাষ্ট্র পর্যায়ে প্রতিটি ধাপে সর্বোত্তম দৃষ্টান্ত বাস্তবায়ন করে গিয়েছেন। রাসুলের জীবন জানা ও তা বাস্তবায়ন করাই এই সীরাত মাহফিলের উদ্দেশ্য বলে তিনি উল্লেখ করেন।

জন ল্যু আইটিভি’র কর্মকান্ডের প্রশংসা করে বলেন, আইটিভি মুসলিম কমিউনিটির তথ্য তুলে ধরে প্রশংসার কাজ করছে। তিনি বলেন, নিউইয়র্ক সহ যুক্তরাষ্ট্রে মুসলমান কমিউউনিটি গ্রোইং কমিউনিটি। মুসলিম কমিউনিটি ঐক্যবদ্ধ হচ্ছেন। এই ঐক্যেই যেকোন সমস্যার সমাধানে বিশেষ ভুমিকা রাখতে পারে।

দীলিপ চৌহান তার বক্তব্যে সীরাহ কনফারেন্সের সাফল্য কামনা করেন এবং ব্রুকলীন বরো প্রেসিডেন্ট ও মেয়র পদপ্রার্থী এরিক অ্যাডামের শুভেচ্ছা পৌছে দেন।

কনফারেন্সটির আয়োজক দলের প্রধান এবং আইটিভি ইউএসএ-এর সিইও মাওলানা মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ বলেন, পৃথিবীর সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মানুষ মহানবী হজরত মোহাম্মদ (সা.)। তিনি সব মানুষের জন্য আদর্শ। তরুণ প্রজন্মের মধ্যে সেই আদর্শকে ছড়িয়ে দেওয়ার মহান লক্ষ্য নিয়ে আমরা এই কনফারেন্সের আয়োজন করেছি। রাসূল (সা.)-এর জীবনকে জানতে এবং মানতে তিনি সবার প্রতি আহবান জানান।

No description available.

সহ-আয়োজক ইমাম আবদুল মুকিত বলেন, মহানবী হজরত মোহাম্মদ (সা.) হলের বিশ্ব মানবতার মুক্তির দূত। তিনি শুধু মুসলমানদের জন্য পথ প্রদর্শক নন। একজন অমুসলিমের জন্যও তিনি আদর্শ মানব। আমরা চাই, বর্তমান প্রজন্ম তার জীবন থেকে গ্রহণ করুক। সেজন্যই মূলত এই কনফারেন্সের আয়োজন করা হয়েছে। আশাকরি, সবার সহযোগিতায় এটি সফল হবে।

সবশেষে বিশেষ মুনাজাত পরিচালনা করেন ইমাম আবু জাফর বেগ। এর আগে ধন্যবাদ সূচক বক্তব্য রাখেন জ্যামাইকা-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটির সভাপতি মোহাম্মদ ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার। জামায়াতে এশার নামাজ আদায় ও তবারক বিতরণের মধ্য দিয়ে সিরাহ কনফারেন্সের সমাপ্তি হয়। জ্যামাইকা-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটি সহ স্থানীয় মসজিদ ও ইসলামিক সেন্টারগুলো সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন।

No description available.

উল্লেখ্য, বিগত ৭ বছর ধরে আইটিভি যুক্তরাষ্ট্রে সম্প্রচারিত হয়ে আসছে। ইসলাম, নবী-রাসুল আর আল কোরআন মানুষের কাছে পৌছে দেয়ার দাওয়াতী কাজই হচ্ছে আইটিভি’র প্রধান লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য।

-কেএল