সিলেবাস সীমিতকরণ নিয়ে কী ভাবছে বেফাক?
অক্টোবর ০৬, ২০২১ ৬:৫৯ অপরাহ্ণ

নুরুদ্দীন তাসলিম।। 

করোনা মহামারী, মহামারী কালীন স্বাস্থ্য সর্তকতা ও ছুটি মিলিয়ে দীর্ঘদিন পরে চালু হয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালু হওয়ার পর থেকেই আলোচনায় ছিল সিলেবাস সংক্ষিপ্তকরণের বিষয়টি।

এ নিয়ে শিক্ষাবিদদের মিশ্র মন্তব্য দিতে দেখা গেছে। কেউ করোনা পরবর্তী এই শিক্ষাবর্ষের শুরু থেকেই সিলেবাস সংক্ষিপ্তকরণের পক্ষে মত দিয়েছেন কেউবা শুরুতেই সিলেবাস সংক্ষিপ্তকরণের দিকে না গিয়ে যতটুকু সম্ভব সিলেবাস এগিয়ে নেওয়ার পক্ষে মতামত দিয়েছেন।

গত বছর বেফাকের পক্ষ থেকে প্রায় বছরের শেষ দিকে সিলেবাস বিষয়ে নির্দেশনা দেওয়া হয়, যখন করোনাকালীন স্বল্প সময়ের কারণে কোন কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা সেই সিলেবাস অনেক আগেই পড়ে ফেলেছিলেন, আবার কেউ হয়তোবা সে পর্যন্ত পৌঁছাতে পারেননি। সিলেবাস নিয়ে বেফাকের সেই বিজ্ঞপ্তির সামনে আসলে তা নিয়ে অসন্তোষ দেখা দেয় শিক্ষক ও ছাত্র মহলে।

তাই এবার করনা পরবর্তী শিক্ষাবর্ষের শুরুতেই এ বিষয়টি গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করার জোর তাগিদ দিয়েছেন শিক্ষাবিদগণ।

আওয়ার ইসলাম এর সাথে একান্ত আলাপচারিতায়, জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া শিক্ষা সচিব মুফতি আশরাফুজ্জামান মতামত দিয়েছিলেন শুরুতেই সিলেবাস সংক্ষিপ্তকরণের দিকে না গিয়ে যতটুকু সময় আছে তার মধ্যেই সিলেবাস এগিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করা উচিত।

তার বক্তব্য ছিল, ‘যতটুকু সম্ভব সিলেবাস এগিয়ে নেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া উচিত। এর পাশাপাশি পরিস্থিতির সাথে সবকিছু কুলিয়ে উঠতে না পারলে সার্বিক দিক বিবেচনায় সিলেবাস-এর বিষয়ে বোর্ডের পক্ষ থেকে বিশেষ গাইডলাইন দেওয়া যেতে পারে’।

তবে রাজধানীর জামিয়া মাদানিয়া বারিধারার শিক্ষা সচিব মুফতি মকবুল হোসাইন কাসেমী ও জামিয়া কারিমিয়া রামপুরার শিক্ষাসচিব মুফতী হেমায়েতুল্লাহ মতমত দিয়েছিলেন  শুরু থেকেই সিলেবাস সংক্ষিপ্তকরণের পক্ষে।

তাদের বক্তব্য, ‘বোর্ডের অধীনে যেসব ক্লাস রয়েছে  শুরুতেই এই ক্লাস গুলোর সিলেবাসের বিষয়ে বোর্ডের পক্ষ থেকে বিশেষ গাইডলাইন দেওয়া প্রয়োজন, এতে করে শিক্ষার্থীদের প্রস্তুতি নেওয়া সহজ, শিক্ষকরাও স্বস্তির সাথে পড়াতে পারবেন’।

শিক্ষাবিদদের মতামত ও পরামর্শের বাইরেও গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল এনিয়ে কী ভাবছে বেফক? এ বিষয়ে  বোর্ডের সিদ্ধান্ত কী?

তা জানতে যোগাযোগ করেছিলাম বেফাকের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক মাওলানা মুহাম্মদ যুবায়ের-এর সাথে। তিনি জানিয়েছেন, সিলেবাসকে সুশৃংখলভাবে এগিয়ে নেওয়ার বিষয়টি গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করছে বেফাক। এ নিয়ে বৈঠক হয়েছে। বৈঠকে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে। সে বিষয়ে শিগগির আনুষ্ঠানিকভাবে জানাবে বেফাক।

কবে আসতে পারে বেফাকের এই ঘোষনা এবিষয়ে এখনো নির্দিষ্ট করে কিছু জানাননি তিনি।

‘তবে শিক্ষক- শিক্ষার্থীরা যেন ভোগান্তি শিকার না হন তা বিবেচনায় রেখে শিগগির সিলেবাস নিয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিবে বেফাক’ জানিয়েছেন বেফাকের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক মাওলানা মুহাম্মদ যুবায়ের।

আরো পড়ুন: খুলছে মাদরাসা: সিলেবাস সীমিতকরণে ৩ নাজেমে তালিমাতের ভাবনা

এটি