191941

মহিলাদের উদ্দেশ্যহীন চলাফেরা ও ইসলামের বিধান

ফরহাদ খান নাঈম।।

ইসলাম নারীদের জান-মাল-ইজ্জত হেফাজত করেছে, এবং তাদের সার্বিক সুরক্ষা নিশ্চিত করতে কিছু দিকনির্দেশনা দিয়েছে।

আল্লাহ তা’য়ালা নারীদেরকে উদ্দেশ্য করে বলেন, তোমরা তোমাদের ঘরে অবস্থান করো। সূরা আহযাব: ৩৩

উপরোক্ত আয়াত অনুযায়ী নারীদের বাইরে বের হওয়ার ক্ষেত্রে মূলনীতি হলো, তারা সর্বদা বাড়িতে অবস্থান করবে এবং গ্রহনযোগ্য কোনো কারণ ছাড়া বাইরে বের হবে না। এমনকি ইসলামে নারীদের মসজিদে সালাত আদায়ের চেয়ে বাসায় সালাত আদায় করাকে উত্তম বলা হয়েছে।

তবে এর মানে এই নয় যে, নারীরা গৃহবন্দী হয়ে থাকবে। বরং মাহরামকে (যাদের সাথে বিবাহ নিষিদ্ধ) সাথে নিয়ে তারা হজ্ব-উমরার উদ্দেশ্যে মক্কা-মদিনায় গমন করতে পারবে, পর্দার বিধান মেনে জ্ঞানার্জনের জন্য মাদ্রাসায় যেতে পারবে এবং আত্মীয়-স্বজনদের বাসায় যেতে পারবে।

নারীরা বিভিন্ন ব্যক্তিগত প্রয়োজনেও বাইরে বের হতে পারবে। তবে শরীয়ত সমর্থিত পন্থায় কোনো মাহরাম পুরুষকে সাথে নিয়ে। বিশেষ প্রয়োজনে বাইরে কোথাও যেতে হলে পথের নিরাপত্তার নিশ্চয়তা নিয়ে বের হতে হবে। আর সর্বক্ষেত্রে শরয়ী হিজাব পরিধান করতে হবে, এবং সুগন্ধিসহ সব ধরনের সাজসজ্জা পরিত্যাগ করতে হবে।

আব্দুল্লাহ রা. এর স্ত্রী জয়নাব রা. বলেন, রাসুলুল্লাহ সা. আমাদেরকে বলেছেন, তোমাদের (নারীদের) মধ্যে কেউ যদি মসজিদে যায়, সে যেনো সুগন্ধি ব্যবহার না করে। মুসলিম: ৪৪৩

উপরোক্ত হাদীসে নারীদেরকে মসজিদে যাওয়ার ক্ষেত্রেও সুগন্ধি বর্জন করতে বলা হয়েছে, সুতরাং অন্য কোথাও যাওয়ার ক্ষেত্রে সুগন্ধি ব্যবহারের তো প্রশ্নই আসে না।

নিছক বিনোদনের উদ্দেশে নারীদের জন্য বাইরে বের হওয়ার ব্যাপারে ইসলামে নিষেধাজ্ঞা এসেছে। কেননা, বর্তমানে বিনোদনের উদ্দেশে বাইরে বের হওয়া মানেই হলো পরপুরুষের সাথে অবাধ মেলামেশা। এক্ষেত্রে মেলামেশা না হলেও অন্ততপক্ষে অবৈধ দৃষ্টিবিনিময় থেকে বেঁচে থাকা অসম্ভব।

তবে ঘরোয়া পরিবেশে যেকোনো হালাল বিনোদনের ক্ষেত্রে নারীদের শরয়ী কোনো বাধা নেই।

নারীদের ঘরের বাইরে বের হতে হলে তাদের নিরাপত্তার বিষয়টি সর্বাগ্রে বিবেচনা করতে হবে। শরয়ী হিজাব মেনে মাহরাম পুরুষকে সাথে করে ঘরের বাইরে বের হওয়াতে কোনো সমস্যা নেই। তবে ইসলাম নারী-পুরুষ উভয়ের জন্যই উদ্দেশ্যহীন ঘোরাফেরাকে নিষিদ্ধ করেছে।

IslamQA থেকে অনুদিত।

-এটি

ads