184973

বনশ্রী আইডিয়ালে ছাত্রীর শ্লীলতাহানীতে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি

আওয়ার ইসলাম:  ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ মুহাম্মাদ আল আমিন বলেন, আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ড্রেস কোড নিয়ে বিতর্কের পরিবর্তিত মূল ড্রেস কোড স্যালোয়ার, কামিজ, ক্রস বেল্ট, ওড়না ও জুতা এবং মেয়েদের জন্য স্কার্ফ ও অতিরিক্ত হিসেবে বড় ওড়না ঐচ্ছিক করে দেয়া হলেও গত মঙ্গলবার যারাই বড় ওড়না পরে ক্লাসে এসেছিলেন তাদের সবার ওড়না কেড়ে নিয়ে শ্লীলতাহানী ঘটিয়েছেন ইংরেজি শিক্ষিকা রুবিনা সুলতানা। তিনি এমন ঔদ্ধত্বপূর্ণ আচরণের সাহস কোথায় পেল তা জাতি জানতে চায়।

বনশ্রী আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজে ওড়না কেড়ে নিয়ে ছাত্রীর শ্লীলতাহানী ও শিক্ষিকার ঔদ্ধত্বপূর্ণ আচরণের প্রতিবাদে আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় ইশা ছাত্র আন্দোলন ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি আব্দুর রাজ্জাকের সভাপতিত্বে কলেজ সম্মূখে মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় তিনি বলেন, একজন নারী শিক্ষিকা হয়ে কিভাবে রুবিনা সুলতানা ছাত্রীদের শ্লীলতাহানী ঘটাতে পারলেন, তা আমাদের বোধগম্য নয়। তিনি এখানেই থামেননি, যারা বোরকা পরে এসেছে তাদের শ্রেণীকক্ষ থেকে বের করে দেয়ার হুমকি দেয়া হয়েছে। এ ধরণের নামধারী শিক্ষক-শিক্ষিকারা যদি তাদের কুরুচিপূর্ণ চিন্তার পরিবর্তন না ঘটান তাহলে শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের সাথে নিয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নিয়ে শিক্ষকের মত সম্মানের যায়গা থেকে বের করে দেয়ার ব্যবস্থা করবো ইনশাআল্লাহ।

বই কিনতে ক্লিক করুন

শেখ মুহাম্মাদ আল-আমিন সাংবাদিকদের মাধ্যমে প্রশাসন, মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, আমরা এহেন ঘটনার দ্রুত বিচার চাই। অন্যথায় সচেতন শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়ে কঠোর আন্দোলনের ডাক দেয়া হবে।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন, ইসলামী শাসতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সভাপতি ইমরান হোসাইন নূর, ঢাকা মহানগর পূর্ব সহ-সভাপতি শেখ মাহবুব নাহিয়ান, সরকারী তিতুমীর কলেজ সভাপতি ডিএম শফিকুল ইসলাম বাহারসহ বনশ্রী আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজ শাখার সদস্যবৃন্দ।

-এএ

ad

পাঠকের মতামত


Notice: Theme without comments.php is deprecated since version 3.0.0 with no alternative available. Please include a comments.php template in your theme. in /home/ourislam24/public_html/wp-includes/functions.php on line 4805

Comments are closed.