রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪ ।। ১ বৈশাখ ১৪৩১ ।। ৫ শাওয়াল ১৪৪৫

শিরোনাম :
ঈদের ছুটি শেষে রাজধানীতে ফিরছে মানুষ, কাল খুলছে অফিস ৮ই শাওয়াল থেকে ভর্তি শুরু রাজধানীর ‘জামিআতুন নূর আল-ইসলামিয়া ঢাকা’য় বিমানবন্দরে সংবর্ধিত বিশ্বজয়ী হাফেজ আবু রায়হান কেউ নাক গলালে আরও ভয়াবহ হামলার হুঁশিয়ারি ইরানের টাকা কমানোয় এ বছর ৮৪ হাজার মুসল্লি হজ পালন করবেন : দাবি ধর্মমন্ত্রীর মুক্তি পাওয়ায় নাবিকদের বাড়িতে খুশির বন্যা ইমাম-খতিব নিবে গুরই ঐতিহাসিক শাহী জামে মসজিদ; থাকবে সম্মানজনক বেতন ও কোয়ার্টার আমি প্রেসিডেন্ট থাকলে ই’সরায়েলে হামলা হতো না: ট্রাম্প ১ মাস পর ২৩ নাবিকসহ মুক্ত এমভি আবদুল্লাহ যৌথবাহিনীর অভিযান চলছে, কেএনএফকে নির্মূল করা হবেই: বিজিবি মহাপরিচালক

গজল বা নাশিদে বাজনা থাকলে সেটা কি শোনা যাবে


নিউজ ডেস্ক

নিউজ ডেস্ক
শেয়ার
ছবি: ইন্টারনেট

বর্তমানে গজল বা নাশীদকে ইসলামী সংগীত বলা হয় এবং এই ইসলামী সংগীতের নামে অনেক শিল্পী সেই সংগীতে মিউজিক ব্যবহার করে। এর মধ্যে বাংলাদেশের অনেক পরিচিত মুখ রয়েছে। এই ব্যাপারে শরীয়তের বিধান কী?

উত্তর-
বাদ্য-বাজনা শোনা নাজায়েয। তাই হামদ-নাতের সাথে বাদ্য-বাজনা থাকলে ঐ হামদ-নাত শোনা জায়েয হবে না। এছাড়া হামদ-নাত, গজলের সাথে এটা যুক্ত করা বেয়াদবিও বটে। তাই এ থেকে বিরত থাকা কর্তব্য। তবে হামদ-নাত, গজল যদি সম্পূর্ণ বাজনা ও মিউজিক মুক্ত হয় এবং তার কথা যদি সহীহ হয়, শরীয়তের কোনো আকীদা বা নির্দেশের পরিপন্থী না হয় তাহলে তা বলা ও শোনা জায়েয।

উল্লেখ্য যে, যারা হামদ-নাত বা ইসলামী ধাঁচের গজল পরিবেশন করবে তাদের দায়িত্ব হল এতে স্বাতন্ত্র্য বজায় রাখা এবং গানের সুরে তা না বলা। তদ্রূপ এসব ক্ষেত্রে অন্যদের পরিভাষা যেমন কনসার্ট, গান ইত্যাদি শব্দও পরিহার করা উচিত।

-সহীহ বুখারী, হাদীস ৫৫৯০; সুনানে আবু দাউদ, হাদীস ৩৬৮৫; মুসতাদরাকে হাকেম, হাদীস ৬৯০৮; খুলাসাতুল ফাতাওয়া ৪/৩৪৫; ফাতহুল কাদীর ৬/৪৮১; আলবাহরুর রায়েক ৭/৮৮; ইসলাম আওর মূসিকী, মুফতী মুহাম্মাদ শফী রাহ.

সূত্র: মাসিক আল কাউসার, রবিউল আউয়াল, ১৪৪০ হিজরি

কেএল/


সম্পর্কিত খবর


সর্বশেষ সংবাদ