202692

ইসলামবিরোধী পোস্ট করলেই চড়া জরিমানা করায় টেক জায়ান্টদের পাকিস্তান ছাড়ার হুমকি

আওয়ার ইসলাম: সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে ইসলাম ও সরকারবিরোধী প্রচারণা বন্ধে বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে পাকিস্তান সরকার। নতুন নিয়মে দেশটিতে ইসলাম ধর্মের জন্য অবমাননাকর কোনও পোস্ট দিলেই ৩ দশমিক ১৪ মিলিয়ন ডলার জরিমানা ঘোষণা করা হয়েছে।

তবে ইমরান সরকারের এধরনের পদক্ষেপে মোটেও সন্তুষ্ট নয় আন্তর্জাতিক টেক জায়ান্টরা। এধরনের কড়াকড়ি প্রত্যাহার করা না হলে পাকিস্তান থেকে ব্যবসা গুঁটিয়ে নেয়ার হুমকি দিয়েছে তারা। সম্প্রতি ফেসবুক-টুইটার-গুগলসহ বেশ কয়েকটি প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের জোট এশিয়া ইন্টারনেট কোয়ালিশনের (এআইসি) পক্ষ থেকে পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দেয়া হয়েছে। ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, সরকারের জারি করা নতুন বিধিনিষেধগুলো সংশোধন করতে হবে। তা না হলে পরিষেবা বন্ধ করে দেয়া হবে।

টেক জায়ান্টদের দাবি, পাকিস্তানের নতুন নিয়মে অবাধ ইন্টারনেট ব্যবস্থা থাকছে না। এর ফলে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো আগের মতো স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারবে না। মানুষও মুক্তভাবে তাদের মতামত জানাতে পারবে না। নতুন নিয়মে বলা হয়েছে, সামাজিক মাধ্যমগুলোকে পাকিস্তানে পরিষেবা দিতে হলে ইসলামাবাদে অফিস থাকতে হবে। ইসলামবিরোধী কোনও পোস্ট শেয়ার করা যাবে না।

এতে আরও বলা হয়েছে, পাকিস্তান সরকার চাইলে কোনও পোস্ট মুছে ফেলতে পারবে। কেবল যেসব পোস্টে অনুমতি দেবে সরকার, সেগুলোই প্রকাশ করা যাবে। প্রয়োজনে ডেটা স্টোর করে রাখতে হবে। পাকিস্তানি কর্তৃপক্ষের মনে হলে তথ্য মুছে ফেলতেও হতে পারে। এত বিধিনিষেধ মানা হবে না বলে আগেই ইমরান সরকারকে হুঁশিয়ারি দিয়েছিল টেক জয়ান্টরা। এবার আনুষ্ঠানিকভাবেই এর বিরুদ্ধে অবস্থান নিল তারা।

এআইসি বলছে, পাকিস্তান সরকার যেসব নিয়ম বেঁধে দিয়েছে তাতে সাধারণ মানুষের কাছে পরিষেবা পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। ব্যবহারকারীদের সুরক্ষাও নিশ্চিত নয়। স্থানীয় সরকার চাইলেই কারও ব্যক্তিগত তথ্যে নজরদারি করতে পারবে।

এর আগে লাইভ স্ট্রিমিং অ্যাপ বিগো নিষিদ্ধ করেছিল পাকিস্তান। তাদের বিরুদ্ধে অনৈতিক কার্যক্রম চালানোর অভিযোগ ছিল। তাছাড়া, অশ্লীল কন্টেন্ট প্রচারের দায়ে টিকটকও নিষিদ্ধ করেছে দেশটি। সূত্র: দ্য ওয়াল

-এটি

আপনার বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- 01640523566