fbpx
           
       
           
       
‘মুুসলিম হত্যার আহ্বানকারী’ কে সেই পুরোহিত
জানুয়ারি ২০, ২০২২ ৯:২৮ অপরাহ্ণ

আওয়ার ইসলাম ডেস্ক: বিদ্বেষমূলক বক্তব্যের দায়ে ভারতে একজন হিন্দু পুরোহিত গ্রেপ্তার হয়েছেন। গত মাসে মুসলমানদের বিরুদ্ধে একটি কটূক্তিমূলক বক্তৃতা দেওয়ার জন্য তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি হলেন ভারতের উত্তর প্রদেশের শক্তিশালী দাসনা দেবী মন্দিরের ইয়াতি নরসিংহানন্দ সরস্বতী।

তিনি কট্টর ডানপন্থী হিন্দু নেতাদের একজন, যারা হরিদ্বার শহরের একটি অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেছিলেন। ওই বক্তব্যে খোলাখুলিভাবে মুসলমানদের হত্যা করার আহ্বান জানান তারা।

বক্তব্যের ভিডিওগুলো সোশ্যাল মিডিয়ায় দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। এতে পুরো বিশ্ব হতবাক হয়ে যায় এবং ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়ার ঝড় ওঠে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে একটি খোলা চিঠি এবং সংশ্লিষ্ট নাগরিকদের কাছ থেকে পুলিশের কাছে অভিযোগ দেওয়া হয়। এই ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্তের দাবিতে একটি আবেদনের শুনানি করছে সুপ্রিম কোর্ট।

এর আগে নরসিংহানন্দ বিতর্কিত কোনো কথা বলেননি। কয়েক মাস ধরে তার বিরুদ্ধে নারী ও সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে গভীর আপত্তিকর মন্তব্য করার অভিযোগ রয়েছে। সেসব ভিডিও এবং অডিওগুলো সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনার ঝড় তুলেছে। ওই পুরোহিতের পক্ষে-বিপক্ষে দুদল লোক দাঁড়িয়ে গেছে।

অভিযোগে বলা হচ্ছে, ওই পুরোহিত মুসলমানদের ‘দানব’ বলে সম্বোধন করেছিলেন। তিনি মুসলিমদের নির্মূল করারও হুমকি দেন এবং ‘ইসলাম মুক্ত’ ভারত গড়ার ঘোষণা দেন। গত বছরের সেপ্টেম্বরে উত্তর প্রদেশে পুলিশ তার বিরুদ্ধে নারীদের অপমান করার অভিযোগে তিনটি মামলা নথিভুক্ত করে। একটি ভিডিওতে দেখা যায়, তিনি নারী রাজনীতিবিদদের তাদের পুরুষ নেতাদের উপপত্নী আখ্যা দিচ্ছেন।

আইনজীবী মা চেতনানন্দ সরস্বতীর মতে, পুরোহিত নরসিংহানন্দ ইতোমধ্যেই ২০টিরও বেশি মামলার আসামি। পুলিশ বিবিসির সাথে ১০টি মামলার কথা জানিয়েছে। অভিযোগগুলোর মধ্যে খুনের চেষ্টা, আত্মহত্যার প্ররোচনা এবং ডাকাতি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

চেতনানন্দ বলেন, মামলাগুলো রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। তার ঘনিষ্ঠ সহযোগী এবং বিশ্বস্ত অনিল যাদব বলছেন, মামলাগুলো আমাদের কাছে গহনার মতো। এতে কোনও সমস্যা নেই। তার ওই বক্তব্যের ব্যাপারে বিবিসি যখন জানতে চায়, তখন নরসিংহানন্দ উত্তেজিত হয়ে তার মাইকটি দূরে ছুড়ে ফেলেন।

খবরে বলা হচ্ছে, নরসিংহানন্দ একজন প্রকৌশলী ছিলেন যিনি রাশিয়ায় পড়াশোনা করেছেন এবং ভারতে ফিরে আসার আগে যুক্তরাজ্যে কাজ করেছেন। তিনি ২০০৭ সালে দশনা মন্দিরে পুরোহিত হিসেবে যোগ দেন। নরসিংহানন্দকে সুরক্ষা দিয়ে আসছে বিজেপি নেতারা।

দ্য ওয়্যারস হেট ওয়াচ-এর দিল্লিভিত্তিক সাংবাদিক আলিশান জাফরি বলেন, তার বিবৃতি এবং আন্তর্জাতিক প্রভাবের কারণে কোনো বিশিষ্ট বিজেপি নেতা এখন তার পক্ষে কথা বলবে না। তবে তিনি যে ঘৃণা তৈরি করতে পেরেছেন, তা সরাসরি বিজেপিকে উপকৃত করেছে।

বিজেপির কোনও বড় নেতা এখন পর্যন্ত পুরোহিতের বক্তব্যের নিন্দা করেননি। বিজেপির সাবেক মুখপাত্র অশ্বিনী উপাধ্যায় হরিদ্বারও অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন। পরে তিনি ঘটনা এড়িয়ে যান। পুলিশ নরসিংহানন্দ ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ ছড়ানোর দায়ে মামলা করে। বিদ্বেষমূলক বক্তব্য দেওয়ার একমাসেরও বেশি সময় পর ১৩ জানুয়ারি তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

-এটি

সর্বশেষ সব সংবাদ