193039

অবসরে শিক্ষার্থীরা যা করতে পারেন

আব্দুল্লাহ আফফান
মফস্বল সম্পাদক>

করোনা ভাইরাসের আঘাতে বন্ধ দেশের সকল ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। বন্ধ কওমি মাদরাসাগুলো। অবসরে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। এই অবসর সময় অপচয় না করে কাজে লাগাতে দেশের তরুণরা মাদরাসার শিক্ষার্থীদের দিচ্ছেন নানা ধরনের পরামর্শ। ‌ কেউ জোর দিচ্ছেন আইটি স্কিলে, কেউ বা বিষয়ভিত্তিক দুর্বলতা দূরীকরণে, আবার কেউ বলছেন লেখালেখিতে যোগ্য হওয়ার এখনই অফুরন্ত সময়।

মাদরাসার তরুণরা এই সময়ে আইটি স্কিল বাড়িয়ে নিতে পারেন: আবু সাঈদ যোবায়ের
এসিস্ট্যান্ট সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার, ডেভনেট লিমিটেড

বর্তমান পৃথিবী যোগ্যতাভিত্তিক হয়ে উঠছে। তাই যেকোনো একটি যোগ্যতাকে টার্গেট করে সেটি বাড়ানো যেতে পারে। এক্ষেত্রে বহু অনলাইন রিসোর্স আছে। অনলাইন অনেক ফ্রী কোর্স আছে। সুনির্দিষ্ট বিষয় টার্গেট করে সেটিকে এগিয়ে নেয়া যেতে পারে। বিশেষত মাদরাসার তরুণরা এই সময়ে আইটি স্কিল বাড়িয়ে নিতে পারেন। করোনা পরবর্তী আগামীর পৃথিবী অনেক বেশি আইটি নির্ভর হবে। তাই সময়টুকু এখন কাজে লাগানো যেতে পারে।

বিষয়ভিত্তিক দুর্বলতা কাটিয়ে তোলার এখনই সময়: মাওলানা আবদুল আলীম
পরিচালক, মারকাযু শাইখিল ইসলাম আল মাদানী ঢাকা।

ছাত্র জীবনে আমরা অনেকেই অবসর খুঁজে বেড়াতাম। ক্লাস চলাকালীন বাড়তি পড়াশোনার তেমন সময় পেতাম না। বিষয়ভিত্তিক জরুরি কিছু জ্ঞানার্জনের জন্য মনে হতো, যদি কিছু দিন ছুটি পেতাম বা ক্লাস কিছু দিন বন্ধ থাকতো!

আবার অনেকের বেলায় এমনও দেখেছি, অবহেলা বা অলসতার কারণে অনেক দূর্বলতা রয়ে গেছে। যেমন হাতের লেখা খারাপ, ভাষাজ্ঞান কম, আরবি ব্যকরণিক দূর্বলতা। তারা ভাবতেন, আহ যদি কিছু দিন সময় পেতাম, তাহলে মেহনত করে এই দূর্বলতাগুলো কাটিয়ে ওঠা যেতো। কিন্তু নিয়মিত ক্লাস চলার কারণে অনেকেই এমন সুযোগ পেতো না। ফলে বেসিক দূর্বলতা রয়েই যেতো বা অতিরিক্ত পড়াশোনা করার তেমন সুযোগ পেতো না।

করোনাকালে আমরা অবসর সময় কাটাচ্ছি, আমরা ছাত্র ভাইরা চাইলে এই অবসরকে গনিমত মনে করে কাজে লাগাতে পারি। নিজের জ্ঞানের পরিধিকে বাড়াতে পারি, পারি অতিতের দূর্বলতা কাটিয়ে ওঠতে। নির্দিষ্ট শিক্ষকের তত্ত্ববধানে আসুন আমরা সময়টাকে কাজে লাগাই। রাসুল সা. পাঁচ বস্তুর পূর্বে পাঁচ বস্তুকে গনিমত মনে করার নির্দেশ দিয়েছেন। তন্মোধ্যে একটি হলো- ব্যস্ততার পূর্বে অবসর সময়কে। আল্লাহ আমাদের তাওফিক দান করুন।

লেখালেখিতে যোগ্য হওয়ার এখনই সুযোগ: সায়ীদ উসমান
সাহিত্য ও সংস্কৃতি সম্পাদক, বাংলাদেশ ইসলামী লেখক ফোরাম।

করোনার এ অবসরকে অনেকভাবেই কাজে লাগানো যায়। যারা তালেবে ইলম-তাদের জন্য এই সময়টা বড় নিয়ামত। তারা অধ্যয়ন, অধ্যাবসায়, ইলমচর্চা ও মুতালাআর মাধ্যমে এই সময়টাকে কাজে লাগাতে পারেন। যারা লেখালেখিতে আছেন-তাদের জন্যও এই সময়টা মূল্যবান গনিমত। তারা তাদের লেখালেখি, গবেষণা, পড়াশোনার মাধ্যমে এই সময়টাকে কাজে লাগাতে পারেন।

তরুণ প্রজন্মের উচিত এই সময়টাকে মোবাইল, ফেসবুক আর ইউটিউবে নষ্ট না করে না দেয়া। যার যে কাজে আগ্রহ আছে, শরিয়ত যদি সেটাকে অনুমোদন দেয়- সে কাজে নিজেকে নিয়োজিত করে, সে কাজে নিজেকে নিমগ্ন রেখে তরুণ প্রজন্ম এই সময়টাকে দামি বানাতে পারে।

-এটি

ad