রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪ ।। ৯ আষাঢ় ১৪৩১ ।। ১৭ জিলহজ ১৪৪৫


হজ করার উত্তম সময় কোনটি?

নিউজ ডেস্ক
নিউজ ডেস্ক
শেয়ার

hajj_interviw

ছোট বেলা থেকেই দেখে আসছি, আমাদেও দেশ থেকে যে সব প্রেমিক হাজী মাবুদের ডাকে সাড়া দেওয়ার জন্য কালো গেলাফে ঢাকা সোনালি দরজার ঘরটিতে লাব্বাইকার গান গাইতে যান, তাদের অধিকাংশই বুড়ো বয়সের। বয়সের ভারে তারা অধিকাংশ আহকামই সঠিকভাবে পালন করতে অক্ষম। অথচ তারুণ্যই হলো হজের শ্রেষ্ঠ সময়, জানিয়েছেন বেশ ক’জন তরুণ আলেম। তারা বলেছেন আমাদের প্রচলিত সিস্টেম থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। হজে যেতে হবে যুব বয়সেই। এ বিষয়ে চার আলেমের মতামত নিয়েছেন আল ফাতাহ মামুন

মুফতি আনিসুর রহমান জাফরী
পরিচালক, মুুহিউস সুন্নাহ ক্যাডেট মাদরাসা, ডেমরা, ঢাকা

হজের যে কাজগুলো রয়েছে সেগুলো কি তরুণ ছাড়া কারো পক্ষে শোভা পায়? এই পৃথিবীতে সর্ব প্রথম যে মানুষটি হজ করেছিলেন, সেও ছিল তরুণ। তরুণ ইসমাঈল-ই আ. সর্বপ্রথম বায়তুল্লায় হজ সম্পাদন করেছিলেন। তার সঙ্গে ছিল তারুণ্যদীপ্ত ইমানের অধিকারী তারই পিতা ইবরাহিম আ.। ইমানের অগ্নি পরীক্ষায় বারবার উত্তীর্ণ ইসাঈল মাতা তরুণী হাজেরা আ. সর্বপ্রথম সাফা ও মারওয়া দৌড়িয়ে হজ কার্য সম্পাদন করেছিলেন। তারো অনেক আগে এই ঘরে ইবাদাত করেছিলেন পৃথিবীর প্রথম তরুণ আদম আ.। যাকে আল্লাহ সৃষ্টিই করেছেন তারুণ্য দিয়ে।

মুফতি এহসানুল হক মুজাদ্দেদি
খতিব, মনিপুর বাইতুর রওশন জামে মসজিদ মিরপুর, ঢাকা

আমরা হজে যাই যৌবনের পাপ মাফ করানোর জন্য আর উন্নত মুসলিম বিশ্বের তরুণরা হজে যায় যৌবনে পাপ না করার শপথ নেওয়ার জন্য। তাই দেখা যায় বিশের¦ দ্বিতীয় মুসলিম দেশের নাগরিক হয়েও হরহামেশা আমরা এমন অনেক কাজ করি যা ভাবতেও গা শিউরে উঠে। কুরআন বলছে যখন তোমার সামর্থ আছে তখন হজ কর। কিন্তু আমরা এমন এক সময় হজ করি যখন আমাদের ছানি পড়া চোখে খোদার সব রং ধূসর মনে হয়। হজ যদি হয় মাবুদের ঘরে সাদা কাফন গায়ে পেঁচিয়ে প্রেমের মরা মরে লাব্বাইকার জলে ভেসে থাকা, তবে এ দুঃসাহসী প্রেম অভিযান তো তরুণদের জন্যই।

মাওলানা শাহ্ মোঃ শফিকুর রহমান
খতিব, আমলীগোলা জামে মসজিদ, লালবাগ, ঢাকা

আমাদের দেশে যুব সমাজে নানা সমস্যা রয়েছে। চুরি, ডাকাতি, হত্যা, গুম, নারী নির্যাতন, ধর্ষণ, খুন, দুর্নীতিসহ হাজারো অপরাধের সঙ্গে জড়িত তরুণরা। এসব তরুণকে অপরাধের জীবন থেকে ফিরিয়ে আনতে হজের ভূমিকা অনন্য। তরুণরা হজে গিয়ে ধৈর্য, ভ্রাতৃত্ববোধ, নামাজ ও ত্যাগ কুরবানিতে অভস্ত্য হয়ে আসতে পারলে দেশে হাজারো যুব সমস্যা কমে যেতে বাধ্য। তরুণদের হজে উৎসাহিত করার জন্য সর্বপ্রথম সরকার এবং হজ এজেন্সিগুলোকে উদ্যেগী হতে হবে। তরুণদের জন্য বিশেষ ছাড়ে ‘আকর্ষণীয় হজ প্যাকেজের’ আয়োজন করা যেতে পারে।

মুফতি মাওলানা মনজুর হোসাইন
খতিব, বাইতুদ দাউদ জামে মসজিদ, মিরপুর, ঢাকা

সামর্থ থাকলে তরুণ বয়সে হজ সম্পাদন করাই উত্তম। আমাদের দেশের সমার্থবান তরুণরা তাদের বৃদ্ধ পিতা-মাতাকে হজে পাঠায়, কিন্তু নিজেরা হজ করে না। তারা মনে করে, যখন তারা পিতা-মাতার মত বার্ধক্যের ভারে নুয়ে পড়বে, পিঠের কুজোর কারণে প্রেম ঘর কাবার দিকে চোখ মেলে তাকাতে পারবে না, তখন ‘দায়-মুক্তির’ হজ করে আসবে। আমাদের তরুণরা জানে না, বুড়ো হওয়ার কারণে হজের অনেক আহকামই সঠিকভাবে পালন করা যায় না। তাই কবির কণ্ঠে কণ্ঠ মিলিয়ে বলতে চাই, ‘এখন যৌবন যার হজে যাওয়ার তার শ্রেষ্ঠ সময়, এখন যৌবন যার ইবাদত করার তার শ্রেষ্ঠসময়।’

আরআর


সম্পর্কিত খবর


সর্বশেষ সংবাদ