200196

শায়খে চরমোনাইর নির্দেশনায় জীবনের গতিপথ রচনা করতে চাই: প্রফেসর আক্কাছ আলী সরকার

মোহাম্মদ আক্কাছ আলী সরকার। পেশায় একজন গুণী চিকিৎসক । ধ্যান-জ্ঞানে একজন সমাজ সেবক ও রাজনৈতিক। মানুষের ভালোবাসা ও সমর্থন পেয়ে গত উপ নির্বাচনে সংসদ সদস্য মনোনীত হন। পল্লীবন্ধু হোসেন মুহাম্মদ এরশাদের দল জাতীয় পার্টির টিকিটে বিপুল ভোটে বিজয়ী হন। কুড়িগ্রাম-৩ আসনের ওলিপুর বাসীর কাছে আস্থা ও ভালবাসার ঠিকানা আক্কাছ আলী সরকার। আক্কাছ আলীর স্বপ্নের ভুবন জুড়ে মানুষ ও মানবতার সেবা। রংপুরে তিনি গড়ে তুলেছেন প্রাইম মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতাল। এলাকার তরুণ-যুবকদের বেকারত্ব দূরীকরণে গড়ে তুলেছেন প্রাইম নার্সিং কলেজসহ একাধিক কারিগরি প্রতিষ্ঠান। প্রাইম স্কুল এন্ড কলেজের চেয়ারম্যান তিনি। বহুরৈখিক শিল্প প্রতিষ্ঠান সফল উদ্যোক্তাও তিনি। সোনিক প্রাইম গ্রুপ এর চেয়ারম্যান আক্কাছ আলী সাম্প্রতিক জাতীয় পার্টি ছেড়ে যোগদান করেছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশে। চরমোনাই পীরের এই দলে যোগদান, ইসলামী আন্দোলনের প্রতি তার মুগ্ধতা এবং আগামী দিনের ব্যক্তি ও রাজনৈতিক জীবনের পরিকল্পনা নিয়ে কথা হয় আওয়ার ইসলাম টোয়েন্টিফোর ডটকম সম্পাদক হুমায়ুন আইয়ুবের সঙ্গে। রোববার দুপুরে দুজনের ভাবনা বিনিময়ের কিছু অংশ তুলে ধরা হলো।


আওয়ার ইসলাম: জাতীয় পার্টির মতো শক্তিশালী ও প্রতিষ্ঠিত দল ছেড়ে ইসলামী আন্দোলনে যোগদানের কারণ কী?
আক্কাছ আলী: মহান আল্লাহ তায়ালা আমাদের সৃষ্টি করেছেন তাঁর ইবাদতের জন্য। কোরআন হাদিস গবেষণা করলে বুঝা যায়, মহান রব আমাদের জন্য ইসলামকে পূর্ণাঙ্গ জীবন বিধান হিসেবে দিয়েছেন। রাজনীতি-সমাজসেবাও ইবাদতের অংশ। আমাদের যাপিত জীবনের পুরোটা সময় ইবাদতে কাটাতে চাইলে ইসলামী আন্দোলনে যোগদানের কোন বিকল্প নেই। আমরা যারা জাতীয় পার্টি, আওয়ামী লীগ কিংবা অন্যান্য দল করি সেখানে চাওয়া-পাওয়া হল শুধুই দুনিয়া। কিংবা প্রার্থিব চাওয়া-পাওয়া। চরমোনাই হুজুরের দল ইসলামী আন্দোলনের প্রতিটি মুহূর্ত ইবাদতের অংশ। আমীরের আনুগত্য, আল্লাহর হুকুম মানার চর্চা এ জাতীয় ইসলামী দলগুলোতে হয়। তাছাড়া দুনিয়া ছেড়ে একদিন চলে যেতে হবে। অনেক নেতা-নেত্রী দুনিয়া থেকে বিদায় নিয়েছেন। আল্লাহ তাআলার কাছে জীবন জীবিকা এবং এই জগত সংসারের সব কিছুর ব্যাপারে জবাবদিহি করতে হবে। বিচারের মুখোমুখি হতে হবে। জীবনের এই প্রান্ত বেলায় ঈমান আমল ও পরকালের সঞ্চয়পত্রের জন্যই আমি ইসলামী আন্দোলনে যোগদান করেছি।

আওয়ার ইসলাম: দেশে ধর্মভিত্তিক রাজনৈতিক দল অনেকগুলো আছে। সেখানে আপনার যোগদানের জন্য ইসলামী আন্দোলনকে বেছে নিলেন কেন?
আক্কাছ আলী: দীর্ঘসময় আমি ইসলামী আন্দোলনকে পর্যবেক্ষণে রেখেছি। ব্যানার ও নামসর্বস্ব অনেক দলের সন্ধান পেয়েছি। তবে নেতাদের আমল-আখলাক, আল্লাহ ভীতি আমি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করেছি। আলহামদুলিল্লাহ অনেক ইসলামী দল এ দেশে কাজ করছে ,তাদের সকলের প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই বলছি- দেশের রাজনীতিতে প্রভাব বিস্তার এবং পূর্ণাঙ্গ ইসলামী রাষ্ট্র গঠনের সক্ষমতা ইসলামী আন্দোলনের আছে। সারা দেশে মুসলিম উম্মাহ ইসলামী আন্দোলনের ছায়াতলে ঐক্যবদ্ধ হবে বলে আশা রাখি।

আওয়ার ইসলাম: ইসলামী আন্দোলনে যোগদানের পর আপনার রাজনৈতিক সারথি, নেতাকর্মী এবং বন্ধু মহলের প্রতিক্রিয়া কী?
আক্কাছ আলী: মিশ্র প্রতিক্রিয়া আছে। আছে পক্ষে-বিপক্ষের সমালোচনাও। আগামী দিনের রাজনৈতিক গতিপথ নিয়েও চলছে প্লান-প্রোগ্রাম। তবে এমপি হওয়া কিংবা নেতা হওয়ার উদ্দেশ্যে নয়; আল্লাহকে পাওয়ার জন্যই এই পথ বেছে নিয়েছি।

আওয়ার ইসলাম: ব্যক্তিগত জীবনে একজন চিকিৎসক আপনি, পর্যায়ক্রমে ইসলামের প্রতি আগ্রহ, সর্বশেষ ইসলামী ভাবধারার রাজনীতিতে সক্রিয় যোগদান ইত্যাদি। ইসলাম নিয়ে আপনার পড়াশোনার চিত্রটি জানতে চাই?
আক্কাছ আলী: জীবন মানেই পরীক্ষা। ঘাত প্রতিঘাত। জীবন একটি উন্মুক্ত গ্রন্থ। ছেলেবেলা থেকেই ইসলামের প্রতি আগ্রহী ছিলাম। যাপিত জীবনে ইসলাম মেনে অগ্রসর হয়েছি। সাম্প্রতিক কোরআন শরীফ পড়ছি, অর্থ বোঝার চেষ্টা করেছি, নবীজির জীবনী, ইসলামের ইতিহাসে মনোযোগী হয়েছি। আলেম লেখিয়েদের রচনা বরাবর আমাকে মুগ্ধ করছে। ইসলামিক গ্রন্থের প্রতি মুগ্ধতা নিয়ে জীবন রাঙাতে চাই। ইসলামী আন্দোলনের উন্মুক্ত গ্রন্থের সবক নিতে চাই। পীর সাহেব চরমোনাই এর হাতে হাত রেখে এগোতে চাই। শায়খে চরমোনাই মুফতি ফয়জুল করিমের আঙ্গুলি নির্দেশনায় জীবনের গতিপথ রচনা করতে চাই।

এমডব্লিউ/

আপনার বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- 01640523566