সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪ ।। ৯ আষাঢ় ১৪৩১ ।। ১৮ জিলহজ ১৪৪৫


ঢিলা-কুলুখ নিয়ে কি ৪০ কদম হাঁটতে হয়?


নিউজ ডেস্ক

নিউজ ডেস্ক
শেয়ার

 

অনেক মানুষকে বলতে শোনা যায়, ঢিলা-কুলুখ নিয়ে চল্লিশ কদম হাঁটতে হয়। এমনকি অনেককে এভাবে গুণে গুণে চল্লিশ কদম হাঁটতেও দেখা যায়। এটি একটি ভুল ধারণা। পেশাব থেকে পবিত্রতা অর্জনের ক্ষেত্রে ব্যক্তিবিশেষে শালীনতা বজায় রেখে একটু হাঁটাহাঁটির বিষয় থাকলেও ৪০ সংখ্যার সাথে এর কোনো সম্পর্ক নেই। হাদীস শরীফে পেশাব থেকে পবিত্রতা অর্জনের বিষয়ে জোর তাকিদ এসেছে। ইবনে আব্বাস রা. বলেন-

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মদীনা অথবা মক্কার এক বাগানের পাশ দিয়ে অতিক্রম করলেন। তখন দুই ব্যক্তির আওয়ায শুনতে পেলেন, যাদেরকে কবরে আযাব দেওয়া হচ্ছে। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন- তাদের আজাব হচ্ছে। (এমন) বড় কোনো কারণে আজাব হচ্ছে না, (যা থেকে বাঁচা খুব কঠিন)। এরপর বললেন, হাঁ, (তবে তাদের বড় গুনাহ)- তাদের একজন পেশাব থেকে ‘ইস্তিবরা’ করত না, আরেকজন পরনিন্দা করত। -সুনানে নাসায়ী, হাদীস ২০৬৮, ২০৬৯

 

হাদীস শরীফে পেশাব থেকে ইস্তিবরা তথা পবিত্র থাকা এবং পবিত্রতা অর্জন করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, তার একটি স্তর এটাও, যাকে ফিকহের কিতাবে এভাবে ব্যক্ত করা হয়েছে-ইস্তিবরা হল পেশাব থেকে পবিত্রতা অর্জন করার জন্য প্রত্যেকের অভ্যাস অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা। যেমন, এতটুকু হাঁটা-হাঁটি, গলা খাকারি ইত্যাদি করা যে, পরে আবার পেশাবের ফোঁটা আসার সম্ভাবনা না থাকে।

দেখুন : আলমাওসূআতুল ফিকহিয়্যা আলকুওয়ায়তিয়্যা, খ. ৪, পৃ. ১১৩;  রদ্দুল মুহতার, খ. ১, পৃ. ৫৫৮

সুতরাং পেশাব থেকে পবিত্রতা অর্জনের জন্য যার যে পদ্ধতি অবলম্বন করার করবে; যার হাঁটা প্রয়োজন শালীনতা বজায় রেখে সেভাবে পবিত্র হবে; কিন্তু ৪০ কদম পরিমাণ হতে হবে- এমন কোনো কথা নেই। সূত্র : আলকাউসার

 

হুআ

 

 

 

 


সম্পর্কিত খবর


সর্বশেষ সংবাদ