fbpx
           
       
           
       
যাত্রী ও বাস চালকের ব্যবহারের বিষয়ে ইসলামের নির্দেশনা
আগস্ট ০৬, ২০২২ ১:০৪ অপরাহ্ণ

।। আব্দুল্লাহ আফফান ।।

আমাদের প্রতিদিনকার সঙ্গী যানবাহন। রাজধানী ঢাকার অধিকাংশ মানুষ বাসে যাতায়াত করে। বিভিন্ন শ্রেণির মানুষ বাসে চড়ে। বাসে ঘটে নানা অপ্রতিকর ঘটনা। কখনো বাস থেকে যাত্রীকে ফেলে দেয়ার অভিযোগ ওঠে। কখনো বাসের স্টাফের গায়ে হাত তোলার খবরও পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে আল জামিয়াতুল ইসলামিয়া মিছবাহুল উলূম খিলগাঁওয়ের মুহাদ্দিস, মুফতি ফাহাদ হাসান জানিয়েছেন, বাসের স্টাফ থেকে যাত্রীদের অসৌজন্যমূলক ব্যবহার নতুন কিছু না। বাসের অনেক স্টাফরা সরকারের নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে বেশি ভাড়া নেয়। সরকারি নীতিমালা মানে না। অতিরিক্ত যাত্রী বেশি তুলে। যার কারণে অনেক নারী যাত্রী ভোগান্তিতে পড়ে। ভদ্রতাবশত অনেকেই কিছু বলে না। যারা মুখ ফুটে কথা বলে তাদের সাথেও অসদাচারণ করতে দেয়া যায়।

তিনি আরও বলেন, ভাড়া কম দেয়ায় যাত্রীকে বাস থেকে ফেলে দেয়া, বাসের স্টাফ দ্বারা নারী যাত্রীরা হেনস্থার স্বীকারের মতো ঘটনাও পত্রিকায় দেয়া যায়।

বাসের এক স্টাফ জানিয়েছেন, সবসিটে যাত্রী তুলে বাস ছাড়ি। যাত্রীরা বাসে ওঠেই বাস ছাড়ার জন্য বলে। কেউ গালি দেয়। কোন স্টপে যাত্রী নামাইতে ও তুলার কারণে দেরি হলে গালি দেয়। কেউ কেউ ভাড়া কম দেয়। শুধু শুধু কথা বাড়ায়। কন্ট্রাকটর কিছু কইলে থাপ্পর দেয়।

তাকরীরে মুসলিম শরহে সহীহ মুসলিম-এর সংকলক মুফতি হোসাইন আহমদ জাবের বলেছেন, বাসের অনেক সমস্যা হয়- তাড়াহুড়ার কারণে। ঢাকার জ্যাম, নির্দিষ্ট স্থানে পৌঁছানোর তাড়া থাকে সবার মাঝেই। যাত্রীদের মধ্যে এক ধরণে প্রতিযোগিতা থাকে। তবে মনে রাখতে হবে- সময়ের তুলনায় জীবনের মূল্য অনেক। এটা আমরা সবাই জানি। কিন্তু মানতে পারি না। অনেক সময় তাড়াহুড়ার কারণে দূর্ঘটনা ঘটে। যেহেতু আমাদের মাঝে নির্দিষ্ট সময়ে গন্তব্যে পৌঁছানোর তাড়া থাকে- তাই পর্যাপ্ত পরিমান সময় হাতে নিয়ে বাসা থেকে বের হওয়া। কিছু সময় জ্যাম তুলনামূলক বেশি থাকে, যাত্রীর চাপ থাকে। সম্ভব হলে এই সময়ের আগেই গন্তব্যে চলে যাওয়া উচিত।

তিনি আরও বলেন, অফিস টাইমে জ্যাম বেশি থাকে। এ সময়ে যারা যাতায়াত করে তাদের সহনশীল হতে হবে। ভাষার ব্যবহার নমনীয় হতে হবে। ভাষার কারণে যেন গুনাহ না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। বিশেষ করে বাসের স্টাফদের সমস্যাগুলো হয় লোভের কারণে। তারা কিছু টাকা বেশি পাওয়ার জন্য অতিরিক্ত যাত্রী তুলে। যাত্রীদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করে। বাসের স্টাফদের উচিত লোভ থেকে বেঁচে থাকা। লোভ-লালসা মানুষের অধঃপতনের মূল কারণ।

রাসূলুল্লাহ সা. লোভ-লালসাকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে বলেছেন, ‘তোমরা লোভ-লালসা থেকে বেঁচে থাকো, কেননা এ জিনিসই তোমাদের পূর্ববর্তীদের ধ্বংস করেছে এবং পরস্পরকে রক্তপাত ঘটানোর ব্যাপারে উসকিয়ে দিয়েছে। লোভ-লালসার কারণেই তারা হারামকে হালাল সাব্যস্ত করেছে।’

তিনি বলেন, যাত্রীদেরও উচিত বাসের সিট পূর্ণ হলে বাসে না ওঠা। অন্য বাসের জন্য অপেক্ষা করা। অনেক সময় দেখা হয়, একজন যাত্রী সিট নেই জানার পরেও ওঠেছে। তিনিই অতিরিক্ত যাত্রী নেয়ার জন্য বিরক্ত হচ্ছে। আমাদের মানসিকতা পরিবর্তন করতে হবে। যাত্রী ও বাসের স্টাফদের একে অন্যের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে হবে। সহযোগী মনোভাব তৈরি করতে হবে।

-কেএল

সর্বশেষ সব সংবাদ