শিরোনাম :
নবীজিকে অবমাননা ও ১ জনকে হত্যা: মুফতি তাকি উসমানির প্রতিক্রিয়া 
ডিসেম্বর ০৫, ২০২১ ১১:০৯ পূর্বাহ্ণ

জুলফিকার জাহিদ।।

পাকিস্তানের শিয়ালকোটে নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে অবমাননা করায় এক শ্রীলংকান নাগরিককে হত্যার ঘটনায় প্রসিদ্ধ ও দায়ী আলেম মাওলানা তারেক জামিলের পর প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন দেশটির সুপ্রিম কোর্টের শরিয়া বেঞ্চের সাবেক বিচারপতি ও শাইখুল ইসলাম মুফতি তাকি উসমানী।

এক টুইট বার্তায় নিজের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন শায়খুল ইসলাম মুফতি তাকি উসমানি।

টুইট বার্তায় তিনি বলেন, নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে নিয়ে অবমাননা অনেক গুরুতর ও মারাত্মক অপরাধ। তবে এই অপরাধের প্রমাণও শক্তিশালী হতে হবে।

মুফতি তাকী উসমানী বলেছেন, কারো উপর নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লামকে অবমাননার অভিযোগে তাকে ব্লাসফেমি আইনে শাস্তি দেওয়ার যৌক্তিকতা নেই। শিয়ালকোট-এর ঘটনা মুসলমানদের ভুলভাবে (কুৎসিতভাবে) উপস্থাপন করেছে। এতে দেশ এবং জাতির বদনাম হয়েছে।

Open photo

এদিকে এ  ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রসিদ্ধ আলেম ও দায়ী মাওলানা তারেক জামিল।

মাওলানা তারেক জামিল বলেছেন, নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে অবমাননা করায় শিয়ালকোটে এক বিদেশি নাগরিককে জীবন্ত জ্বালিয়ে হত্যা করা হয়েছে, এটি অত্যন্ত দুঃখজনক ঘটনা।

মাওলানা তারেক জামিল বলেন, শুধু অভিযোগের ভিত্তিতে আইনকে হাতে তুলে নেওয়া ইসলামী শিক্ষা বিরোধী।

তিনি বলেন, ‘ইসলামে সহিংসতা ও চরমপন্থার কোন স্থান নেই। চরমপন্থা প্রতিরোধে আলেমদের ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে হবে’।

প্রসঙ্গত, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ায় পাকিস্থানের শিয়ালকোটে একটি বেসরকারি কারখানার ম্যানেজারকে হত্যা করেছেন সেখানকার বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা। কারখানার ম্যানেজার শ্রীলংকার নাগরিক বলে জানা গেছে।

খবরে জানা গেছে, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ায় বিক্ষুব্ধ জনতা শ্রীলংকার সেই নাগরিককে টেনে হেঁচড়ে রাস্তায় নিয়ে আসেন এবং তার শরীরে আগুন ধরিয়ে দেন।

এনটি

সর্বশেষ সব সংবাদ