শিরোনাম :
সিনেমার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মোনাজাত: যা বললেন অনুতপ্ত সেই ব্যক্তি
নভেম্বর ১৮, ২০২১ ৩:৫৮ অপরাহ্ণ

নুরুদ্দীন তাসলিম।।

সিনেমার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মোনাজাত করে সমালোচনার মুখে পড়েছেন এক মসজিদের খাদেম। সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে দেখা গেছে কোন এক সিনেমার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পাঞ্জাবি টুপি পরিহিত একজন দোয়া করছেন।

ভিডিও দেখে যে কেউ ভেবে বসবেন যিনি দোয়া করছেন তিনি মাদরাসা সংশ্লিষ্ট কেউ। তাকে কেউ সরাসরি আলেম ভেবে বসলেও খুব একটা ভুল ভেবেছেন বলা যাবে না। তবে ভাইরাল ভিডিওর সেই ব্যক্তি কোন আলেম বা মাদরাসা সংশ্লিষ্ট কেউ নন। তার নাম মোহাম্মদ হোসাইন। তিনি হেফজ শেষ করে একটি মসজিদে খেদমত করতেন; পাশাপাশি বিভিন্ন বাসায় আরবি পড়ান। এ বিষয়টি আওয়ার ইসলামকে জানিয়েছেন সেই ব্যক্তি নিজেই।

অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট আলেম লেখক মাওলানা সাইমুম সাদী নিজেও কথা বলেছেন সে ব্যক্তির সাথে। তার সঙ্গে আলাপচারিতার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে গিয়ে তিনি আওয়ার ইসলামকে জানিয়েছেন, মোহাম্মদ হোসাইন নামের সেই ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলে তাকে সরল মনে হয়েছে। আমার সাথে কথা বলার সময় সে কান্না করছিলেন, সে জানতো না এটি কোন সিনেমার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মোনাজাত ছিল। এ বিষয়ে অনুনয়-বিনয় করে ক্ষমা চেয়েছে সেই ব্যক্তি।

আওয়ার ইসলামের সঙ্গে কথা বলার সময় ভিডিওর সেই ব্যক্তি জানিয়েছেন, ভাইরাল হওয়া ভিডিওর ঘটনা প্রায় ১০ মাস আগের। তখন তিনি রাজধানীর একটি মসজিদের খাদেম হিসেবে কাজ করতেন। মসজিদ থেকে চাকরি ছেড়েছেন প্রায় ছয় মাস হয়েছে। বর্তমানে তিনি কোন মসজিদের সাথে সংশ্লিষ্ট নন।

ঘটনা সম্পর্কে তার বক্তব্য, ‘একদিন রাজধানীর মগবাজার এলাকার কোথাও যাচ্ছিলেন তিনি। কেউ একজন ডেকে বলেছিলেন আমাদের একটা অনুষ্ঠানের দোয়া করতে হবে। কথা মত দোয়া করেছিলেন। অনুষ্ঠানটি কোন সিনেমার ছিল আদৌ বুঝতে পারেননি তিনি’।

গত ১০ মাসেও বিষয়টি বুঝতে পারেননি। গতকাল কাজী মারুফ নামের এক ফেসবুক ব্যবহারকারী ভিডিওটি আপলোড করলে তাকে এক মসজিদের ইমাম ফোন করে এ বিষয়ে অবগত করেন। পরবর্তীতে পোস্ট আপলোডকারীর কাছে ফোন করে তিনি ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

‘এই দোয়ার অনুষ্ঠান পরবর্তীতে আমার জন্য এমন শাস্তি বয়ে আনবে; আলেম সমাজের জন্য কলঙ্ক হয়ে দাঁড়াবে তা একটুও বুঝতে পারিনি, আমি আলেম সমাজ ও জাতির কাছে ক্ষমা চাই ‘ হুবহু এমন শব্দগুলোই বলেছেন তিনি আওয়ার ইসলামকে।

নিজের এমন অসাবধানতায় অনুতপ্ত এই ব্যক্তি বলেছেন, ‘আমার কারনে বিব্রতকর পরিস্থিতির মুখোমুখি হওয়ায়  আলেম সমাজের কাছে আমি ক্ষমা চাই’।

তিনি আরো বলেছেন,  বর্তমানে অনেক ইউটিউবার আমাকে সামনে নিয়ে ভিডিও করতে চাচ্ছেন; কিন্তু এমন বিব্রতকর পরিস্থিতির পরে আমি ক্যামেরার সামনে আর আসতে চাই না। তাই আমাকে সামনে আনতে চেষ্টা না করার আহ্বান জানাচ্ছি ইউটিউবারদের‘।

আরো পড়ুন: ‘ফারেগের পরে মুদি দোকানে ব্যবসা’: বক্তব্যে তোপের মুখে হাফেজ নাজমুস সাকিব

এটি

সর্বশেষ সব সংবাদ