কথিত সুদমুক্ত ইসলামী সমিতি বা গ্রুপের এ দু’টি কাজ কি সত্যিই সুদমুক্ত!
সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২১ ১:২১ অপরাহ্ণ

আওয়ার ইসলাম ডেস্ক: আমাদের একটি সমিতি আছে। আমাদের গ্রামের মানুষ বিভিন্ন সংস্থা হতে সুদযুক্ত ঋণ গ্রহণ করে। আমরা চাচ্ছি যেন তারা সুদ হতে বাঁচতে পারে। তাই আমরা সমিতির পক্ষ হতে হালাল পন্থায় ব্যবসায়িক ভিত্তিতে তাদেরকে অর্থ প্রদানের চিন্তা করছি। যাতে তারা ও সমিতি উভয়পক্ষই উপকৃত হতে পারে। অতএব, মুফতী সাহেবের নিকট নিবেদন এই যে, আমাদেরকে এর একটি হালাল ও সহজ পন্থা বলে দিবেন।

উল্লেখ্য আমরা বর্তমানে দুটি পদ্ধতিতে এ কার্যক্রম চালু করেছি। পদ্ধতিগুলো শরীয়ত সম্মত কিনা জানালে বাধিত হব।

পদ্ধতি-১ : কারো টাকার প্রয়োজন হলে আমরা সমপরিমাণ মূল্যে তার কোন স্থাবর বা অস্থাবর সম্পদ ক্রয় করি এবং মূল্য তাকে প্রদান করি। অতঃপর একই মজলিসে পুনরায় সে আমাদের থেকে কিস্তিতে পূর্ব মূল্য অপেক্ষা অধিক মূল্যে তা ক্রয় করে নেয়। এক্ষেত্রে অধিক কিস্তি হলে মূল্য বেশী হয় আর কম কিস্তি হলে মূল্য তুলনামূলক কম হয়।

পদ্ধতি-২ : কারো টাকার প্রয়োজন হলে আমরা কোন মাল ক্রয় করে উক্ত মাল তার নিকট কিস্তিতে কিছু লাভসহ বিক্রি করি। এক্ষেত্রেও কিস্তি বেশী হলে লভ্যাংশ বেশী দিতে হয় আর কিস্তি কম হলে লভ্যাংশ কম দিতে হয়।

উত্তর:
১. না, এ পদ্ধতির কারবার জায়েয নয়। এটি সুদী কারবারের একটি ভিন্ন রূপ।

২. প্রশ্নের বিবরণ অসম্পূর্ণ মনে হচ্ছে। যার টাকার প্রয়োজন তার নিকট কিস্তিতে পণ্য বিক্রি করার কথা লিখেছেন। এতে তো তার টাকার প্রয়োজন ফুরালো না, বরং উল্টো সে আরো ঋণী হয়ে গেল। বিস্তারিত জানালে উত্তর দেওয়া যাবে ইনশাআল্লাহ।

উল্লেখ্য, শরীয়তসম্মতভাবে বিনিযোগ করতে চাইলে এ সম্পর্কে অবগত কোন বিজ্ঞ মুফতীর কাছে গিয়ে ভালভাবে জেনে নিতে হবে। -সুনানে আবু দাউদ ২/৪৯০, মুসনাদে আহমদ ২/২০৭, ফাতহুল কাদীর ৬/৩২৪, আল কিফায়া ৬/৩২৩, ইলাউস সুনান ১৪/১৭৭ (মাসিক আলকাউসার থেকে নেয়া।)

-কেএল