শিরোনাম :
খুলছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান: কওমি মাদরাসা খোলার বিষয়ে যা বলছেন বোর্ডের দায়িত্বশীলগণ
সেপ্টেম্বর ০৫, ২০২১ ৭:১৬ অপরাহ্ণ

।।মোস্তফা ওয়াদুদ।।
নিউজরুম এডিটর।।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি জানিয়েছেন, আগামী ১২ সেপ্টেম্বর থেকে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান একযোগে খুলছে। আজ রোববার (৫ সেপ্টেম্বর) আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা শেষে এক ব্রিফিংয়ে একথা জানান তিনি।

শিক্ষামন্ত্রীর ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে খুলছে দেশের কওমি মাদরাসাও। তবে সরকার স্বীকৃত কওমি মাদরাসার সর্বোচ্চ অথরিটি ‘আল হাইয়াতুল উলিয়া ও কওমি মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড-বেফাক কী ধরনের প্রস্তুতি নিচ্ছে জানতে চেয়েছিলাম বোর্ড সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীলদের কাছে।

তারা বলছেন, ‘আমরা আগেই বলেছি। সরকার যখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার নির্দেশ দিবে, তখনই আমরা মাদরাসা খুলে দিবো। এখন যেহেতু শিক্ষামন্ত্রী ১২ সেপ্টেম্বর শিক্ষপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে বলেছেন, তাহলে আমরা আর কালবিলম্ব করবো না। ১২ সেপ্টেম্বরই আমাদের মাদরাসাগুলো খুলে দেওয়া হবে।’

কথা বলেছিলাম আল হাইয়াতুল উলিয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশের অন্যতম সদস্য ও চট্টগ্রাম কেন্দ্রিক প্রতিষ্ঠিত ‘আঞ্জুমানে ইত্তেহাদুল মাদারিস বাংলাদেশের সভাপতি মুফতি আব্দুল হালিম বোখারীর সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘সরকার যেহেতু অনুমতি দিয়েছে, তাহলে আর মাদরাসা বন্ধ রাখবো না। তবে আমাদের ছয় বোর্ডের সমন্বয়ে গঠিত হাইয়াতুল উলিয়ার সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি। বোর্ড যে সিদ্ধান্ত দিবে আমরা সেটাই অনুসরণ করবো।’

বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের একজন উচ্চপ্রদস্থ দায়িত্বশীল বলেন, ‘শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও হাইয়াতুল উলিয়ার চেয়ারম্যান মহিউস সুন্নাহ আল্লামা মাহমুদুল হাসান অনেক আগে থেকেই প্রচেষ্টা চালিয়ে আসছেন। শিক্ষামন্ত্রীর ঘোষণা মোকাবেক আগামী ১২ সেপ্টেম্বর যদি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে। তাহলে আমরাও মাদরাসা খুলে দিবো। তবে এ বিষয়ে আমাদের বোর্ড থেকে আলাদা প্রজ্ঞাপন জারী হবে। চেয়ারম্যান মহোদয়ের সঙ্গে পরামর্শ সাপেক্ষে শীঘ্রই প্রজ্ঞাপন জারী করা হবে।’

এদিকে তানযীমুল মাদারিসিদ দ্বীনিয়া বাংলাদেশের চেয়ারম্যান ও বসুন্ধরা মাদরাসার মহাপরিচালক মুফতি আরশাদ রাহমানী বলেন, ‘যেহেতু আমাদের মাদরাসাগুলোর একটি সর্বোচ্চ অথরিটি আল হাইয়াতুল উলিয়া আছে এবং এর চেয়ারম্যান মহোদয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে এখনো আমাদের কিছু জানাননি। তাই আমরা কিছু বলতে পারছি না। তবে হাইয়াতুল উলিয়া বা এর চেয়ারম্যান মহোদয় যখন আমাদের মাদরাসা খোলার প্রস্তুতি নিতে বলবেন আমরা তখনই প্রস্তুতি গ্রহণ করবো।’

সিলেটের আযাদ দ্বীনি এদারায়ে তালীম বাংলাদেশ এর মহাসচিব মাওলানা আব্দুল বছির বলেন, ‘মাদরাসাগুলো খোলার জন্য তো আমরা আগে থেকেই উদগ্রীব হয়ে আছি। এখন যেহেতু ঘোষণা চলে এসেছে। সুতরাং আর দেরী করা ঠিক হবে না।’

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসের কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। তবে মাঝখানে খুলে দেওয়া হয়েছিলো দেশের কওমি মাদরাসাগুলো। কিন্তু কয়েকবার চেষ্টা করেও এই মহামারির কারণে জেনারেল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো খোলা সম্ভব হয়নি। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও দ্রুত সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। এরপর থেকেই প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন সংশ্লিষ্টরা।

গত বছরের ৮ মার্চ দেশে করোনা সংক্রমণ দেখা দেয়। এরপর ১৭ মার্চ থেকে সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছুটি ঘোষণা করা হয়। এ পর্যন্ত গত ১৭ মাসে দফায় দফায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি বাড়ানো হয়। অবশেষে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে আগামী ১২ সেপ্টেম্বর তারিখ ধার্য করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি।

এমডব্লিউ/

সর্বশেষ সব সংবাদ