fbpx
           
       
           
       
শিরোনাম :
‘আরবি পড়ুয়াদের মিডিয়ায় পদচারণা: সংকট ও সম্ভাবনা’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত
মার্চ ২৫, ২০২১ ৬:৫১ অপরাহ্ণ

আওয়ার ইসলাম: ‘আরবি পড়ুয়াদের মিডিয়ায় পদচারণা : সংকট ও সম্ভাবনা’ শীর্ষক নবীন আলেমদের জন্য দিক-নির্দেশনামূলক মনোমুগ্ধকর একটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত (২৩ মার্চ) মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ মিলনস্থল সাইনবোর্ডে অবস্থিত মাদরাসা আনাস বিন মালিক (রাদিয়াল্লাহু আনহু)-এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক দেশের অন্যতম আদীব শহীদুল্লাহ ফজলুল বারী রহ.-এর বিশেষ স্নেহধন্য ছাত্র মাওলানা শহীদুল্লাহ ফজলুল করীম। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাওলানা রুহুল আমীন সাদী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাওলানা রুহুল আমীন বলেন, মিডিয়া বিশ্বব্যাপী একটি প্লাটফর্ম। আরবির পাশাপাশি বাংলা ও ইংরেজি জানা একজন আলেমের জন্য এ প্লাটফর্ম উন্মুক্ত।

দেশের অভ্যন্তরীণ বিশেষ মহলের স্বার্থ রক্ষাকারী কতক মিডিয়ার বৃত্তে বন্দি না থেকে প্রয়োজনে নিজেকে উদ্যোগী হওয়ার স্বপ্ন দেখিয়ে তিনি বলেন, ফেসবুক, ইউটিউব থেকেও আপনি শুরু করতে পারেন। আজকের বিশ্বে সোস্যাল মিডিয়াকে অস্বীকার তো নয়ই; বরং সোস্যাল মিডিয়াই সংবাদ আদান-প্রদানের প্রধান হাতিয়ারে পরিণত হয়েছে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে অনুবাদক মাওলানা আলী হাসান তৈয়ব বলেন, মাতৃভাষার পর একটি বিদেশী ভাষা জানা থাকার অর্থ হচ্ছে অতিরিক্ত দুটি চোখ থাকা। সে হিসেবে কওমী পড়ুয়া একজন আলেমের চোখ রয়েছে দশটি। এই দশটি চোখ মিডিয়ায় পদচারণার জন্য বিশাল সম্ভাবনা।

তিনি আরো বলেন, সংকট বলতে মূলত কিছু নেই। সংকট হল আমাদের নিজস্ব জড়তা। নিজেকে গুটিয়ে রাখার মানসিকতা। এ দেশের এক জীবিত কিংবদন্তী হাজারো আলেমের উসতায মাওলানা সুলতান যওক নদভী এর উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, ‘আমি যতটুকু আরবি শিখেছি, আরবি চর্চায় যে সময় সাধনা ব্যয় করেছি- তার কিয়দংশও যদি বাংলার জন্য করতাম, আমার অন্তত মাআরেফুল কুরআনের মতো খেদমত থাকত।’

বিশেষ অতিথি মারকাযুল উলুম আল-ইসলামিয়াহ নারায়ণগঞ্জের শিক্ষা সচিব মুফতি মাহমুদ হাসান বলেন, বর্তমান মিডিয়া ‘আপনি মানুষকে দাওয়াত দিন আপনার রবের পথে হেকমত ও সদুপদেশ দ্বারা এবং তাদের সাথে তর্ক করবেন উত্তম পন্থায়।’ (সুরা নাহাল : ১২৫) এ আয়াতেরই অন্যতম একটি প্রকার। সুতরাং আরবি পড়ুয়া বা আলেমদের এ থেকে পিছিয়ে থাকার সুযোগ নেই।

ভাষা প্রশিক্ষক মুফতি হানিফ আল হাদী বলেন, মিডিয়ায় পদচারণার জন্য নিজ আদর্শ, ঐতিহ্য, চেতনা, বিশ্বাস পরিবর্তন নয়; প্রয়োজন যোগ্যতার। নিজেকে যোগ্য করে গড়ে তুলুন। প্রতিকূলতা সব অনুকূলে চলে আসবে।

জাতীয় লেখক পরিষদের সেক্রেটারি মাওলানা আব্দুল গাফ্ফার পাঠ্য কিতাবের পাশাপাশি বর্তমান জ্ঞান-বিজ্ঞান ও আন্তর্জাতিক আদান-প্রদানে ব্যবহৃত আরবির সাথে আরবি পড়ুয়াদের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক তৈরির স্বার্থে আরবি মাসিক/পাক্ষিক/সাপ্তাহিক পত্রিকার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন।

অতিথিবৃন্দের আলোচনার পূর্বে মাদরাসার আদব ও লুগাহ উভয় বিভাগের ছাত্ররা বিভিন্ন বিষয়ে আরবি বক্তব্য, কথোপকথন ইত্যাদির অতি আকর্ষণীয় প্রদর্শনী করে। উপস্থিত মেহমানগণ খুব উপভোগ করেন । লেখাপড়ার মানের উপর নিজেদের সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন। অনুষ্ঠান শেষে প্রধান অতিথি মাদরাসার শিক্ষকবৃন্দের হাতে আরবি সাহিত্য বিভাগ ও আরবি ভাষা প্রশিক্ষণ বিভাগের ছাত্রদের সৌজন্যে ‘সম্মাননা স্মারক’ তুলে দেন।

সভাপতি মাওলানা শহীদুল্লাহ ফজলুল করীম আরবিতেই বিদায়ী বক্তব্য পেশ করেন। তিনি এমন সুন্দর মনোরম শিক্ষামূলক সেমিনারের জন্য মহান আল্লাহ পাকের শুকরিয়া আদায় করে আগত মেহমান, অভিভাবকবৃন্দ, আরবি ভাষা ও সাহিত্য উভয় বিভাগের ছাত্রদের বিশেষ শুকরিয়া জ্ঞাপন করেন।

অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন, মুফতি জাফর আহমদ, মুফতি নজীর আহমদ, মুফতি নূর মোহাম্মদ রহমানী, হা মীম আতিকুল্লাহ, মাওলানা হোসাইন মাহমুদ মজুমদার প্রমুখ।

এমডব্লিউ/

সর্বশেষ সব সংবাদ