২০১৯-০৩-১৫

মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ ২০১৯

গাজায় হামাসের ১০০ টার্গেটে ইসরায়েলের বিমান হামলা

OURISLAM24.COM
news-image

সাজ্জাদ আকবর

ফিলিস্তিনের গাজায় অবস্থিত হামাসের একশোটি লক্ষ্যবস্তুতে হেলিকপ্টার ও জেট নিয়ে হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলের সেনাবাহিনী।

বৃহস্পতিবার শেষ রাতে এ হামলা চালানো হয়েছে বলে দাবি করেছে ইসরায়েলি সেনারা। খবর আরটির।

ইসরায়েলের সেনাবাহিনী বলছে, এর আগে হামাসের পক্ষ থেকে রকেট হামলা চালানোর জবাবে এ বিমান হামলা চালানো হয়েছে। গাজায় হামাসের প্রশিক্ষণকেন্দ্র ও শিবির লক্ষ করে এসব হামলা চালানো হয়েছে বলে দাবি করেছে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা বাহিনী আইডিএফ।

এদিকে আরটির ভিন্ন আরেকটি খবরে জানানো হয়েছে ইসরায়েলি হামলার জবাবে আজ শুক্রবার ইসরায়েলের বিমান পাল্টা ২ টি রকেট হামলা করেছে ফিলিস্তিনের মুক্তি সংগ্রামী প্রতিরক্ষা বাহিনী হামাস।

তবে ইসরায়েলি সেনারা দাবি করছে, তারা রকেট দুটিকে মধ্য আকাশেই ভূপাতিত করেছে। ইসরায়েলি আয়রন ডুম মিসাইল প্রতিরক্ষা সিস্টেম দ্বারা এ হামলাকে ব্যর্থ করে দিয়েছে। হামলা পাল্টা হামলায় হতাহতের খবর এখনও জানা যায়নি।

উল্লেখ্য, জায়নবাদ নামক মতবাদের মধ্য দিয়ে ১৯৪৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় ইসরায়েল রাষ্ট্র। জায়নবাদ ইহুদি ধর্মের দর্শন নয়, এটি একটি রাজনৈতিক মতবাদ; অলীক রূপকথায় যে মতবাদের শরীর গড়ে উঠেছে।

জায়নবাদের ভাষ্য, জেরুজালেমসহ ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড নিয়ে গঠিত পবিত্র নগরীতে স্রষ্টা তাদের অধিকার ফিরিয়ে নিতে বলেছিল! ইতিহাসে নজর ফেরালে দেখা যায়, ১৮ শতক থেকে জায়নবাদ নামের আন্দোলনের মধ্য দিয়ে ইউরোপসহ বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে থাকা ইহুদিরা তাদের বর্ণবাদী ধারণা ধারণা বিস্তার ঘটিয়ে দখল হওয়া ফিলিস্তিনি ভূমিতে ইসরায়েল রাষ্ট্রের জন্ম দেয়।

২০১৮ সালের জুলাইয়ে জায়নবাদী মতাদর্শকে আইনগত ভিত্তি দিতে নেসেটে পাস হওয়া ‘জাতিরাষ্ট্র বিষয়ক আইন’ অনুযায়ী দখলীকৃত ফিলিস্তিনি ভূমিতে প্রতিষ্ঠিত ইসরায়েল রাষ্ট্রকে ঐতিহাসিকভাবেই ইহুদিদের জন্মভূমি আখ্যা দেওয়া হয়। বলা হয়, সঙ্গত কারণেই এখানকার মাটিকে নিজেদের দাবি করার অধিকার রয়েছে তাদের।

আইনে বলা হয়, ইসরায়েল শুধু ইহুদি নাগরিকদের রাষ্ট্র। অথচ ইসরায়েল নামক দেশটিই গড়ে উঠেছে ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের ভূখণ্ড দখল করে।

১৯৬৭ সালে আরব-ইসরায়েল যুদ্ধে ফিলিস্তিনের পূর্ব জেরুজালেম দখল করে নেয় ইসরায়েল। ১৯৮০ সালে পুরো জেরুজালেমের দখল নেয় ইসরায়েল। তবে অধিকাংশ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় কখনও তাদের এই দখলদারিত্বের স্বীকৃতি দেয়নি।

আরআর