২০১৯-০১-১০

শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯

‘চীনের উইঘুর মুসলিমদের কমিউনিস্ট হতে বাধ্য করা হচ্ছে’

OURISLAM24.COM
জানুয়ারি ১০, ২০১৯ , ৬:১০ অপরাহ্ণ
news-image

আওয়ার ইসলাম: চীনের জিনজিয়াং প্রদেশে উইঘুর মুসলিমদের ওপর দমন-পীড়ন ও অত্যাচারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন ইসলামী ঐক্যজোটের ভাইস চেয়ারম্যান ও খেলাফতে ইসলামীর আমীর মাওলানা আবুল হাসানাত আমিনী।

আজ বৃহস্পতিবার সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এই প্রতিবাদ জানান। বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, চীন সরকার জিনজিয়াং প্রদেশকে কারাগারে রূপান্তরিত করেছে। সেখানকার উইঘুর মুসলিমদের অসংখ্য ক্যাম্পে আটকে রেখে সংশোধনের নামে অমানবিক অত্যাচার করা হচ্ছে।

জাতিসংঘের তথ্যানুযায়ী অস্থায়ী শিবিরে আটককৃতদের সংখ্যায় প্রায় ১০ লাখের বেশি। আমরা জানতে পেরেছি যে, এসব গোপঁন বন্দি শিবিরে আটকে ধর্ম ত্যাগ করে কমিউনিস্ট পার্টির মতাদর্শে বিশ্বাস স্থাপনে উইঘুর মুসলিমদের বাধ্য করা হচ্ছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, চীনের বিভিন্ন অংশে ইসলাম ধর্মের বিধি-বিধান পালন নিষিদ্ধ করা হয়েছে। মুসলিমদের নামাজ, রোযা, দাড়ি রাখা ও নারীদের হিজাব এবং স্কার্ফ পরিধানেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। বিভিন্ন মসজিদ থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে গম্বুজ ও চাঁদ-তারার প্রতিকৃতি।

মাদ্রাসা ও আরবি শিক্ষার ক্লাস নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ধর্মীয় কর্মকান্ডে শিশুদের অংশগ্রহণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এভাবেই যুগ যুগ ধরে মুসলমানদের অধিকার হরণ করে চীনকে মুসলিম শূন্য করার পরিকল্পিত নকশা বাস্তবায়নে এগিয়ে যাচ্ছে ইসলামবিদ্বেষী চরমপন্থী চীনা সরকার।

বিবৃতিতে মাওলানা আবুল হাসানাত আমিনী আরও বলেন, মুসলিমদের ওপর এই নিপীড়ন সম্পূর্ণ অমানবিক, বর্বর ও সভ্যতা বিবর্জিত। চীনের এই অমানবিক ও বর্বর মুসলিম নিপীড়নের বিরুদ্ধে জাতিসংঘ, ওআইসিসহ আর্ন্তজাতিক সংস্থা, মুসলিম রাষ্ট্রসমূহ ও আর্ন্তজাতিক সম্প্রদায়কে দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে, তা না হলে উইঘুর মুসলমানরা ভবিষ্যতে অস্থিত্ব সংকটে পড়েবে। চীন দখলদার শক্তিতে পরিণত হবে, যা বিশ্বশান্তির জন্য শঙ্কা ও গভীর উদ্বেগের বিষয়।

-এটি