২০১৯-০১-০৪

শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯

সাফারি পার্কে লেখক ফোরামের ভ্রমণ ২৬ জানুয়ারি

OURISLAM24.COM
জানুয়ারি ৪, ২০১৯ , ১১:৩৪ পূর্বাহ্ণ
news-image

আওয়ার ইসলাম: ইসলামী ধারার তরুণ লেখকদের জাতীয় সংগঠন বাংলাদেশ ইসলামী লেখক ফোরাম এবারও দিনব্যাপী সাহিত্য ও আনন্দ ভ্রমণের আয়োজন করেছে।

আগামী ২৬ জানুয়ারি (শনিবার) গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে এই ভ্রমণ হবে। এতে লেখক ফোরামের সদস্য, উপদেষ্টা এবং সুধীবৃন্দ অংশগ্রহণ করবেন।

এবারের আনন্দ ভ্রমণে বিশেষ আর্কষণ থাকবে সাফারি পার্কের নয়টি রাইড ব্যবহারের সুযোগ। মনোমুগ্ধকর সব রাইড ব্যবহারের মাধ্যমে খুব কাছ থেকে দেখা যাবে বাঘ, সিংহ, কালো ভাল্লুক, আফ্রিকান চিতা, চিত্রা হরিণ, মায়া হরিণ, হাতি ইত্যাদি বন্যপ্রাণী।

এসব প্রাণী থাকবে খোলা বনে, আর আপনি মিনিবাস কিংবা জিপে করে তাদের কাছ ঘেঁষে ঘুরে বেড়াবেন। বিশাল আয়তনের বনে গাড়ি ছুটে চলবে। প্রাণীগুলো নিরিবিলি আপন পথে হেঁটে চলবে। কখনও কখনও গাড়ির সামনে এসে দাঁড়াবে। তখন চাইলে বাঘ-সিংহ-হরিণের সঙ্গে নিজেকে ক্যামেরায় বন্দী করতে পারবেন সহজেই।

এছাড়াও সাফারি কিংডমে ঘুরে দেখতে পারবেন ম্যাকাও ল্যান্ড। এতে আছে নীল-সোনালি ম্যাকাও, সবুজ ম্যাকাও, আফ্রিকান গ্রে প্যারট, টিয়া, পেলিকেন, লুটিনো রিংনেক প্যারাটসহ প্রায় ৩৪ প্রজাতির পাখি।

ম্যাকও ল্যান্ডের পাশেই মেরিন অ্যাকুরিয়াম। এতে রয়েছে ২০ প্রজাতির মাছ। ক্রোকোডিল ফিস, টাইগার ফিস, লুকিয়ে থাকা ব্ল্যাক গোস ও অস্কার। আরও রয়েছে চিকলেট মাছ- যা ২০ সেকেন্ড পরপর রং পরিবর্তন করে।

এছাড়াও রয়েছে প্রজাপতি সাফারি। যেখানে প্রায় ২৬ প্রজাতির প্রজাপতি রয়েছে। এখানে রয়েছে প্রকৃতিবীক্ষণ কেন্দ্র, ফ্যান্সি কার্প গার্ডেন, জিরাফ ফিডিং স্পট, আইল্যান্ড, বোটিং ও লেইক জোন। তাছাড়া অর্কিড হাউজ, শকুন ও পেঁচা কর্নার, এগ ওয়ার্ল্ড, ক্যাঙারু, হাতি শো গ্যালারিও রয়েছে এই পার্কে। এর সবকিছুর খরচ বহন করবে লেখক ফোরাম।

ভ্রমণকে আরও উপভোগ্য করতে পার্কের প্রধান ফটকের কাছেই ভাড়া করা হয়েছে মনোরম রিসোর্ট। সেখানে অনুষ্ঠিত হবে সাহিত্য ও আনন্দ প্রতিযোগিতা।

উপস্থিত ছড়া লেখা, হাসিভরা ধাঁধাঁ, সাধারণ জ্ঞান, ইসলামি সঙ্গীত, লেখক যখন গায়ক, যেমন খুশি তেমন বলা, চেয়ার খেলা, বিস্কুট দৌড় এবং শরীর চর্চামূলক অন্যান্য আনন্দ খেলা। ফুটবল-ক্রিকেট তো থাকছেই।

প্রতি পর্বে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হবে। তাছাড়া ভ্রমণে অংশ নেয়া প্রত্যেকের জন্যই থাকবে আকর্ষণীয় উপহার সামগ্রী।

২৬ জানুয়ারি সকাল সাতটায় ঢাকা থেকে যাত্রা শুরু হবে। গাড়ি ছাড়ার খানিকটা পরই পরিবেশন করা হবে সকালের নাস্তা। জোহরের নামাজ শেষে থাকবে সুস্বাদু খাবার। সন্ধ্যায় ফিরতে ফিরতেও থাকবে হালকা নাস্তা পর্ব।

এই ভ্রমণে লেখক ফোরামের সদস্যরা অংশ নিতে পারবেন। তবে রেজিস্ট্রেশন ফি পরিশোধসাপেক্ষে প্রত্যেক সদস্য একজন করে গেস্ট (সদস্যের বাইরে) নিতে পারবেন।

অংশগ্রহণেচ্ছুকদের ২০ জানুয়ারির মধ্যে ৮০০ টাকা বিকাশ অথবা নগদ পরিশোধ করে নাম নিবন্ধন করতে হবে।

বিকাশ নম্বর ০১৯১৪ ৫৭৪০৪৭ (মুনীরুল ইসলাম), ০১৯৪৫ ১০৪৭৮৫ (আমিন ইকবাল)।

প্রসঙ্গত, এবারের আনন্দ ভ্রমণে ‘আঞ্চলিক ভাষায় শ্রেষ্ঠ বাকপটু’ শিরোনামে একটি আকর্ষণীয় প্রতিযোগিতা থাকবে। এ বিষয়ে অংশগ্রহণ করে কয়েকটি জেলার সদস্যরা নিজ জেলার শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করার সুযোগ পাবেন।

জেলাগুলো হলো : ১. ঢাকা ২. বরিশাল ৩. নোয়াখালী ৪. চট্টগ্রাম ৫. ময়মনসিংহ ৬. সিলেট।

অতএব উপরোক্ত জেলাগুলোর যেসব সদস্য উক্ত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে আগ্রহী তাদের আয়োজকদের সঙ্গে আগেই যোগাযোগ করতে হবে।

আর যেসব সদস্য ‘আনন্দ ভ্রমণে’ নিজেদের নতুন বইয়ের (২০১৮ সালে প্রকাশিত) মোড়ক উন্মোচন করতে আগ্রহী-তারা ১০ কপি বই সঙ্গে আনবেন।

সাহিত্য ও আনন্দ ভ্রমণসংক্রান্ত যেকোনো প্রয়োজনে যোগাযোগ : ০১৯১৩ ৫৫৮৬০২, ০১৯১৪ ৫৭৪০৪৭, ০১৯৪৫ ১০৪৭৮৫।

আরআর