202646

মাদক নয়! চাই শিক্ষা ও সংস্কৃতির পরিবেশ!

হুমায়ুন আইয়ুব।।

সকালের আলোটাও বেশ নরম। কিছুটা রোদেলা। জানালার ওপাশে একটুকরা বারান্দা। নিচে সবুজ ঘাস। দুটি ফুলের আড়াআড়ি বসে থাকা। কোলাহল ভেঙ্গে পাখিদের কিচিরমিচির আমাকে মুগ্ধ করেছে।

দীর্ঘ বিরতি; মায়ের কাছে যাওয়া হয় না! গ্রামের আলো-বাতাস শরীরে মাখি না! আপন মানুষ গুলোর আদরের ডাক শুনি না!

আজ যাবো। মায়ের কাছে। নানুর কাছে। নদীর কাছে। ফুলে ভরা গাছের কাছে । মাটির কাছে। যে মাটিতে আমি জন্মসূত্রের গন্ধ পাই। কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরে আমার পৈতৃক বাস। গ্রামের নাম হিলচিয়া। ঘোড়াওদ্রা নদীর পাশে আমার গ্রাম।

নাম হিলচিয়া হলেও; গুরুই দৌলতপুরসহ আশপাশের অর্ধশত গ্রামের মোহনা হিলচিয়া বাজার। প্রাচীন এই বাজার ঘিরেই গড়ে উঠেছে আমাদের একটি শিক্ষা কার্যক্রম। শিশুদের মাদ্রাসা-হিলোচিয়া বাজার ইসলামিয়া মাদ্রাসা। এছাড়াও স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসা কিন্টারগার্ডেন গড়ে উঠেছে।

তবে শিক্ষা-সংস্কৃতিতে দৃশ্যমান অগ্রগতি নেই। এখনো শিল্প সাহিত্য সংস্কৃতির ছোঁয়া তেমন লাগেনি। এলাকার শিশু-কিশোরদের বসবাস উপযোগী পরিবেশ তৈরি সময়ের দাবি। হিলচিয়া ও তার আশপাশে শিক্ষা বান্ধব পরিবেশ চাই। চাই সংস্কৃতি চর্চার উপায়-উপকরণ, খেলাধুলার মাঠ। শিল্প বান্ধব মানুষগুলো এগিয়ে এলে হিলচিয়া হবে শিক্ষা-সংস্কৃতি ও শিল্প-সাহিত্যের নগরী। শিক্ষার আলো, সংস্কৃতির চর্চা, প্রতিভা বিকাশের ব্যবস্থাপনা থাকলে শিশু-কিশোররা মাদকে জড়াবে না।

মদ- মাদকতা, শিশু-কিশোরদের পড়াশোনার পরিবেশ নষ্ট হয় এমন কিছু থেকে সতর্ক থাকতে হবে! সতর্ক অবস্থান নেবেন সমাজের দায়িত্বশীলরা, নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ, অভিভাবক, স্কুল কলেজ ও মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ। হিলচিয়ায় মাদক নয়। সুস্থ ধারার সংস্কৃতিক নগরী গড়ে উঠুক।

লেখক : সম্পাদক, আওয়ার ইসলাম টোয়েন্টিফোর ডটকম

আপনার বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- 01640523566