202543

বিরুদ্ধে লিখলে কি মানতে হয় না সাংবাদিকতার ব্যাকরণ!

জহির উদ্দিন বাবর।।

কারও বিরুদ্ধে সংবাদ পরিবেশন করলেও সেটার ন্যূনতম গ্রহণযোগ্যতা থাকতে হয়। সাংবাদিকতার নীতিমালা কিছুটা হলেও প্রয়োগ করতে হয়। আল্লামা মামুনুল হককে নিয়ে দুয়েকটি মিডিয়ায় সংবাদ দেখলাম। একটি সংবাদ লেখার জন্য সাধারণ যে ব্যাকরণ আছে এর কোনোটাই সেখানে ফলো করা হয়নি।

কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলে তথ্যভিত্তিক প্রমাণ দেওয়া লাগে, সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির বক্তব্য নিতে হয়, এর কোনোটাই মানা হয়নি পরিবেশিত নিউজে। মনে হচ্ছে অন্য কোথাও থেকে চাপিয়ে দেওয়া কিছু। এ ধরনের ভিত্তিহীন নিউজ প্রতিষ্ঠিত মিডিয়ায় কীভাবে আসে ভেবে পাচ্ছি না!

আরেকটি টিভি চ্যানেলে দেখলাম, ড. আহমদ আবদুল কাদেরকে শিবিরের সাবেক সভাপতি হিসেবে পরিচিত করানো হচ্ছে। শিবিরের সঙ্গে বিরোধের জেরে প্রায় ৪০ বছর আগে যিনি দল ছেড়ে চলে এসেছেন, তাকে সেই দলের ট্যাগ লাগানো সাংবাদিকতার কোনো অভিধানে আছে? ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি ছিলেন এমন চার/পাঁচজন এখন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা।

‘বিএনপির কমিটিতে সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি’ এটা কি কোনো মিডিয়া নিউজ করে! ছাত্র ইউনিয়ন কিংবা জাসদের তুখোড় নেতা ছিলেন এমন অনেকেই এখন আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতা। তাদের ক্ষেত্রে কি আগের সেই পরিচয় বলা হয়? মতিয়া চৌধুরী কিংবা নুরুল ইসলাম নাহিদরা যখন আওয়ামী লীগের পদ পান তখন কি বলা হয়, আওয়ামী লীগের কমিটিতে ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি!

এ ধরনের উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও উদ্ভট সাংবাদিকতার কারণে গণমাধ্যম দিন দিন গণমানুষের আস্থা হারাচ্ছে।

লেখক: সভাপতি, বাংলাদেশ ইসলামি লেখক ফোরাম।

-এটি

আপনার বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন- 01640523566