196093

আমিরাত-ইসরায়েল শান্তি চুক্তি: নেতানিয়াহু বললেন ‘ঐতিহাসিক দিন’

আওয়ার ইসলাম: নিজেদের কূটনৈতিক সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে রাজি হয়েছে ইসরায়েল ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। এর মধ্য দিয়ে উপসাগরীয় আরব দেশগুলোর সঙ্গে নতুন করে কূটনৈতিক সম্পর্ক চালু করতে যাচ্ছে ইসরায়েল।

গতকাল বৃহস্পতিবার এক টুইট বার্তায় ঘটনাটিকে ‘ঐতিহাসিক’ আখ্যা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

পরে এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু এবং আবু ধাবি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ আল নাহিয়ান আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেছেন, ঐতিহাসিক এই অগ্রগতির মধ্য দিয়ে মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠিত হবে। এই চুক্তির ফলে ইসরায়েল তাদের দখলকৃত পশ্চিম তীরের বৃহৎ অংশকে সংযুক্ত করার পরিকল্পনা স্থগিত করবে বলে জানিয়েছে।

এদিকে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের টুইটের জবাবে বলেছেন, ‘ঐতিহাসিক দিন’।

এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাষ্ট্রদূত ইউসেফ আল ওতাইবা এক বিবৃতিতে বলেন, এটি কূটনৈতিক দিক দিয়ে মধ্যপ্রাচ্যের জন্য বিজয়। আরব-ইসরায়েল সম্পর্কের ক্ষেত্রে এটি একটি তাৎপর্যপূর্ণ অগ্রগতি। যা উত্তেজনা হ্রাস করবে এবং ইতিবাচক পরিবর্তনের জন্য নতুন শক্তি তৈরি করবে।

বিবিসির খবরে বলা হয়, এতদিন উপসাগরীয় আরব দেশগুলোর সঙ্গে ইসরায়েলের কোনো কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিল না। তবে ইরানের আঞ্চলিক প্রভাব নিয়ে অংশীদারিত্ব উদ্বেগ তাদের মধ্যে একটি অনানুষ্ঠানিক যোগাযোগের কারণ।

ইসরায়েল ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রতিনিধিরা আগামী সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রে এ নিয়ে বৈঠক করবেন। সেখানে বিনিয়োগ, পর্যটন, সরাসরি বিমান যোগাযোগ, সুরক্ষা, টেলিযোগাযোগ, প্রযুক্তি, শক্তি, স্বাস্থ্যসেবা, সংস্কৃতি, পরিবেশ, পারস্পরিক দূতাবাস স্থাপন সম্পর্কিত দ্বিপাক্ষিক চুক্তি স্বাক্ষর করবেন তারা।

-এটি

Please follow and like us:
error1
Tweet 20
fb-share-icon20

ad